মেইন ম্যেনু

ঢাকার পর রাজশাহীতে হচ্ছে নভোথিয়েটার

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে স্পেস শিক্ষার গুরুত্ব বিবেচনা করে দেশে রাজধানী ঢাকার পর এবার রাজশাহীতে একটি নভোথিয়েটার নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ২২২ কোটি ৩ লাখ টাকার এ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি।

মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) শেরেবাংলা নগরের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক বৈঠকে প্রকল্পটির অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

পরিকল্পমন্ত্রী বলেন, ‘আজ যেসব প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে এর সবগুলোই গুরুত্বপূর্ণ। ঢাকা পর আমরা শিক্ষার্থীদেরকে স্পেস শিক্ষা দেয়ার জন্য ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার, রাজশাহী স্থাপন; নামে একটি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ প্রকল্পটিতে ব্যয় হবে ২২২ কোটি ৩ লাখ টাকা। প্রকল্পটির পুরো ব্যয় বহন করবে সরকার। প্রকল্পটি জুলাই ২০১৫ হতে জুন ২০১৮ মেয়াদে বাস্তবায়ন করা হবে। বিজ্ঞান প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আওতায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।’

প্রকল্পটি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির গুরুত্ব অপরিসীম। এদের মধ্যে স্পেস সায়েন্স আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে যোগাযোগ, অগ্রিম আবহাওয়াবার্তা, দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা, তথ্য প্রযুক্তি, গ্লোবাল পজিশনিং ইত্যাদি প্রদান করে থাকে। বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের জন্য স্পেশ শিক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রসার ও সাধারণ জনগণের মধ্যে স্পেস বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষা ছড়িয়ে পড়লে কুসংস্কার দূর হবে।’

পরিকল্পমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী রাজশাহীর পর আমরা প্রত্যেক বিভাগে নভোথিয়েটার স্থাপন করা হবে।এই নভোথিয়েটার স্থাপনের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষায় আগ্রহী করে তোলা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে শিক্ষার্থীরা বিনোদনের মাধ্যমে শিক্ষার সুযোগ পাবে।’

একনেক বৈঠকে ৪ হাজার ৯শ ৬১ কোটি ৪২ লাখ টাকার ৯টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। এরমধ্যে সরকারি অর্থায়ন (জিওবি) ৪ হাজার ৯শ ৪৫ কোটি ৯ লাখ এবং সংস্থার নিজস্ব তহবিল ১৬ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। বৈঠকে ৮টি নতুন প্রকল্প ও একটি সংশোধিত প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই