মেইন ম্যেনু

ঢাকা-খুলনা-ঝিনাইদহে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত তিন

রাজধানী ঢাকার কদমতলী, খুলনার কয়রা ও ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছেন।

এরমধ্যে ঢাকা ও ঝিনাইদহের ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটেছে র্যাবের সঙ্গে। খুলনায় ‘বন্দুকযুদ্ধ’ নিহত হয়েছে পুলিশের সঙ্গে।

এদের মধ্যে ঝিনাইদহ ও খুলনায় নিহতদের পরিচয় জানাতে পারলেও ঢাকায় নিহতের পরিচয় জানাতে পারেনি র্যাব।

রাজধানীর ঘটনা প্রসঙ্গে জানা গেছে র্যাবের পাঠানো ক্ষুদে বার্তা থেকে। এতে বলা হয়েছে, শুক্রবার ভোররাতে কদমতলীর ওয়াসার সামনে এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয়। নিহতের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, এক রাউন্ড গুলি, ৫১০ পিস ইয়াবা ও ২৪টি প্যাথেড্রিন উদ্ধার করা হয়েছে।

খুলনার ঘটনা সম্পর্কে জানা গেছে, খুলনায় সুন্দরবনের বনদস্যু আনারুল বাহিনীর প্রধান আনারুল ইসলাম (৪৫) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোরে খুলনার কয়রা উপজেলার খরখড়িয়া নদীর দক্ষিণ পাশে এ ঘটনা ঘটে। বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের দুই কনস্টেবল আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় বন্দুক, ৫টি কার্তুজ ও দুটি দা জব্দ করা হয়েছে।

অন্যদিকে ঝিনাইদহের ঘটনা প্রসঙ্গে র্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে র্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শহিদুল ইসলাম ওরফে পঁচা নামে এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় দুই র্যাব সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলি জব্দ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই