মেইন ম্যেনু

ঢাকা মেডিকেলে পানির জন্য বিক্ষোভ মিছিল

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে রোগী ও তাদের স্বজনরা পানির জন্য বিক্ষোভ মিছিল করেছে। আজ বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তারা এই বিক্ষোভ মিছিল করে।

জরুরি বিভাগের সামনে মিছিলে খালি বোতল হাতে নিয়ে বিক্ষাভকারীরা ‘পানি চাই, পানি চাই, পানি কেন নাই’ বলে স্লোগান দেয়।

এক রোগীর স্বজন ওবায়দুর রহমান বলেন, তাঁর রোগী পুরাতন ভবনের নিউরোসার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে। এখানে পানি নেই।

বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারিতে ভর্তি এক রোগীর স্বজন আবদুল কুদ্দুসসহ আরো অনেকে জানান, বেলা ১১টার পর থেকে পানি বন্ধ রয়েছে। হাত-মুখ ধোয়ার জন্য পানি থাকা তো দূরের কথা, বাথরুমে পর্যন্তও পানি নেই। জরুরি বিভাগের সামনের পাম্পেও পানি নেই। এই পাম্প থেকে রোগীর স্বজনরা খাওয়ার পানি সংগ্রহ করত।

ঢামেকের জরুরি বিভাগের পুরোনো পিজি ক্যান্টিনের পাশে পাম্প অপারেটর শাহ আলম বলেন, ‘আমাদের এখানে দুটি ডিপ টিউবয়েল আছে। একটি ছয় মাস ধরে নষ্ট। একটি চালু ছিল, সেটিও নষ্ট। আমরা পিডব্লিউডির (গণপূর্ত বিভাগ) ইঞ্জিনিয়ার মামুনকে জানিয়েছি। তিনি মিস্ত্রি পাঠাচ্ছেন। আশা করি, কিছুক্ষণের মধ্যে মিস্ত্রি এসে পৌঁছাবে।’

শাহ আলম দাবি করেন, ঢামেকের নতুন ভবন ও পুরাতন ভবনের কিছু জায়গায় ওয়াসার পানি যাচ্ছে। তবে পুরাতন ভবনের নিউরোসার্জারির ক্যাজুয়ালটি ব্লক এবং বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারির পুরো ভবনই পানিশূন্য।

এ ব্যাপারে ঢামেকের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মিজানুর রহমান বলেন, ‘পানির বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি। আমি এক্ষুনি খোঁজ নিচ্ছি।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বার্ন ইউনিটের একাধিক চিকিৎসক জানান, আগুনে পোড়া রোগীদের প্রথম চিকিৎসাই হচ্ছে শরীরে পানি দেওয়া। কিন্তু পানি নেই। রোগীর ক্ষত পরিষ্কার করার জন্যও পানির প্রয়োজন। সর্বক্ষণই সব কাজের জন্যই পানি প্রয়োজন। কিন্তু পানি পাওয়া যাচ্ছে না।






মন্তব্য চালু নেই