মেইন ম্যেনু

তনুর মা-বাবাকে সিআইডির জিজ্ঞাসাবাদ

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনুর স্বজনদের ডেকে বক্তব্য নিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

শনিবার দুপুরে তনুর বাবা ইয়ার হোসেন, মা আনোয়ারা বেগম, বড় ভাই নাজমুল হোসেন, আনোয়ার হোসেন ও চাচাতো বোন লাইজু জাহানকে বাসা থেকে ডেকে কুমিল্লা সিআইডি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

এর আগে হত্যা মামলা তদন্তে সিআইডির একটি দল শনিবার কুমিল্লা সেনানিবাসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সকাল ৯টায় দলটি সেনানিবাসে যায়। দুপুর পর্যন্ত দলটি সেখানে অবস্থান করছিল। শুক্রবারও দিনভর সিআইডির একটি দল সেনানিবাসে তিনটি স্থান পরিদর্শন করে।

সিআইডি কুমিল্লা সূত্র জানায়, সিআইডি ঢাকার বিশেষ পুলিশ সুপার আবদুল কাহহার আখন্দের নেতৃত্বে দলটি সেনানিবাস এলাকায় তনুর মরদেহ উদ্ধারের স্থানসহ বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করেন।

দলে অন্যদের মধ্যে ছিলেন ঢাকা থেকে আসা সিআইডির দুজন সিনিয়র এসপি, কুমিল্লা সিআইডির সিনিয়র এসপি ড. নাজমুল করিম খান, কুমিল্লার সিনিয়র এএসপি জালাল উদ্দিন আহমেদ, এএসপি মোজাম্মেল হক, ইন্সপেক্টর শাহনেওয়াজ, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গাজী ইব্রাহীম ও সিআইডির আরো কয়েকজন সদস্য।

সিআইডি ঢাকার বিশেষ পুলিশ সুপার আবদুল কাহহার আখন্দ শনিবার বিকেলে কুমিল্লায় সাংবাদিকদের জানান, তথ্যের প্রয়োজনে তনুর স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেছি। প্রয়োজনে আরো কথা বলব। আমরা কাজ করছি। এখনো মন্তব্য করার সময় আসেনি।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ মার্চ সিআইডি ঢাকার বিশেষ পুলিশ সুপার আবদুল কাহহার আখন্দকে প্রধান করে ছয় সদস্যের একটি তদন্তসহায়ক কমিটি গঠন করা হয়। গত ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাসের বাসার অদূরে একটি ঝোপের পাশে তনুর লাশ পাওয়া যায়।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই