মেইন ম্যেনু

তবু ভূমিকা রাখবেন এমপিরা, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের প্রধান না থেকেও শিক্ষা ও প্রতিষ্ঠানের মানোন্নয়নে সংসদ সদস্যরা (এমপি) ভূমিকা রাখতে পারেন বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদে সাংসদরা থাকতে পারবেন না বলে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সর্বোচ্চ আদালতের চূড়ান্ত এ রায়ের বিষয়ে আজ রোববার নিজ দপ্তরে এক প্রতিক্রিয়ায় শিক্ষামন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘এমপিদের দায়িত্ব আইন প্রণয়নে জাতীয় সংসদে ভূমিকা রাখা। এ কারণে অনেক এমপি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের প্রধান হন না। আমি নিজেও এ পর্যন্ত কোনো স্কুল কমিটিতে যুক্ত হইনি।’

শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘যেহেতু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর পরিচালনা পর্ষদ অনির্বাচিত লোক দিয়ে হয় না, তাই এ বিষয়ে একজন একটি রিট পিটিশন দায়ের করেছিলেন। এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট রিটকারীর পক্ষে রায় দেন। এমপিদের অনুরোধের ভিত্তিতে ওই রায়ের বিরুদ্ধে সরকার আপিল করে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন।’

‘এ বিষয় এমপিদের সঙ্গে আলোচনা করে সরকারের পক্ষে আর কিছু করণীয় আছে কি না দেখা হবে।’

সর্বোচ্চ আদালতের রায় শিক্ষার মানোন্নয়নে কতটুকু ভূমিকা রাখবে—সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের একটা দৃষ্টিভঙ্গি ছিল শিক্ষাবিদ, উচ্চপদস্থ অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা ও খ্যাত ব্যক্তিরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পর্ষদের প্রধান হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার মানোন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারবেন।’






মন্তব্য চালু নেই