মেইন ম্যেনু

তরি তরকারির অপচয় কমান ৯টি কৌশলে

বাজারে দামাদামি করা মানেই খাবারের পেছনে খরচ কমে গেলো- তা কিন্তু নয়। অনেক সময় বাজার বাসায় নিয়ে আসার পরেও আমাদেরই কিছু ভুলে অনেকটা টাকা অপচয় হয়। কী করে? কারণ এমন কিছু খাবার নষ্ট হয় যেগুলো আসলে একটু সতর্ক থাকলেই এড়ানো সম্ভব। জেনে নিন কিছু কৌশল যাতে আপনার তরিতরকারি অপচয় হওয়া অনেক কমে যাবে এবং আপনার টাকা অপচয়ও হবে কম।

১) তরিতরকারির মেয়াদ খেয়াল রাখুন

আপনার কাঁচাবাজার অনেকদিন ধরে টাটকা থাকবে না, পচেও যেতে পারে দ্রুতই। এই কারণে কোন সবজি কতদিন খাওয়ার উপযোগী থাকবে সেটা জেনে রাখুন এবং এই ব্যাপারে থাকুন একটু মনযোগী।

২) দরকার না হলে কাটবেন না

ফল বা সবজি যেটাই হোক, সেটা খাওয়া বা রান্না করার আগে কেটে নেবেন। বাজার থেকে এনেই কেটে ফেলবেন না। বিশেষ করে যদি সবজি বেশকিছুদিন পর রান্না করতে চান, তাহলে সেটাকে না কেটে রাখাই ভালো। কাটার সাথে সাথে এতে জীবাণু জন্মাতে থাকে এবং এর আয়ু কমে যায়।

৩) পচনশীল খাবার আগে রান্না করে ফেলুন

যেসব খাবার আগে পচে যেতে পারে সেগুলো আগে রান্না করে ফেলুন। এছাড়াও যদি দেখেন কোন সবজি নেতিয়ে পড়া শুরু করেছে তবে সেটা দেরি না করে রান্না করে ফেলাই শ্রেয়।

৪) কন্টেইনারে রাখুন

কেটে ফেলা তরিতরকারি কন্টেইনারে করে রাখুন ফ্রিজে। কিছু বিশেষ কন্টেইনার পাওয়া যায় যেগুলোতে রাখলে খাবার একটু বেশি টাটকা থাকে, এগুলো ব্যবহার করতে পারেন। তবে কিছু খাবার কখনোই ফ্রিজে রাখা উচিৎ নয়।

৫) কাটা সবজি কিনবেন না

অনেকেই এমন তরিতরকারি ও ফল কিনে থাকেন যেগুলো আগে থেকেই চপ করে রাখা হয়েছে। রান্নার সুবিধার্থেই এগুলো কেনা হয়। কিন্তু এগুলো আসলে সহজে পচে যায়, বেশিদিন ফ্রিজে রাখাও যায় না।

৬) পচা ফল ও সবজি বেছে ফেলে দিন

বাজার থেকে কেনাকাটা করে এসে সবকিছু ফ্রিজে তুলে দেবেন না। এর মাঝে অনেক সময়ে ময়লা ও পচা সবজি থাকতে পারে। পচা, পোকায় কাটা সবজি ও ফল বেছে ফেলে দিন। কারণ আশেপাশের তরিতরকারিও এর প্রভাবে পচে যেতে পারে।

৭) পচনশীল খাবারগুলো চোখের সামনে রাখুন

ভেজিটেবল বক্সে রাখলে অনেক সবজিই চোখে পড়ে না এবং একটা সময়ে পচে গেলে এগুলোকে ফেলে দেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না। ফ্রিজে এমন জায়গায় এগুলোকে রাখুন যাতে ফ্রিজ খুললেই চোখে পড়ে এবং আপনি বের করে খেতে পারেন।

৮) রুটি সংরক্ষণ

পাউরুটি সাধারণ ফ্রিজে রেখে দিলে শক্ত কাঠ হয়ে যাবে। আবার বাইরে রাখলেও ছাতা পড়ে যায়। আপনি যদি প্রতিদিন পাউরুটি খান তাহলে এমনভাবে কিনুন যাতে ২-৩ দিনের মাঝেই খাওয়া হয়ে যায়। এক্ষেত্রে বাইরে ৪ দিন পর্যন্ত রাখতে পারেন। এছাড়া স্লাইস না করা পাউরুটি কিনে দরকার অনুযায়ী স্লাইস করে নিলেও সহজে নষ্ট হয় না। বেশিদিন স্টোর করে রাখার দরকার হলে জিপলক ব্যাগে করে রেখে দিতে পারেন ফ্রিজারে।

৯) পিঁয়াজ এবং আলু

পিঁয়াজ এবং আলু আমাদের দেশে খুব বেশি ব্যবহার করা হয়। পিঁয়াজ কখনোই ফ্রিজে রাখবেন না। বাইরে ব্যাগেও রাখবেন না। রাখুন ঠাণ্ডা, অন্ধকার এবং শুকনো জায়গায় খোলা একটা ঝুড়িতে। আলুর কাছে রাখবেন না পিঁয়াজ। পিঁয়াজ নষ্ট হয়ে যাবে। তবে স্প্রিং অনিয়ন বা পিঁয়াজকলি সাধারণত ফ্রিজে রাখলেই ভালো থাকে।






মন্তব্য চালু নেই