মেইন ম্যেনু

তরুণীকে লিফট দেওয়ার নামে তিনজন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ

গুরগাঁওয়ে গণধর্ষণের শিকার হলেন দিল্লির বাসিন্দা ছাব্বিশ বছরের এক তরুণী। গত রবিবার এম জি রোডের এক শপিং মল থেকে ফেরার সময় গাড়ির ভিতর তিনজন তাঁকে ধর্ষণ করে।

রবিবার রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ অটোয় চড়ে মুনিরকায় নিজের বাড়িতে ফেরার পথে বেভারলি পার্ক-১ এলাকায় তাঁকে লিফ্ট দেয় ওই তিন ব্যক্তি। এরপর গুরগাঁওয়ের এক নিরিবিলি স্থানে গাড়ির ভিতরে তাঁর শ্লীলতাহানি করে দুষ্কৃতীরা।

সোমবার সকালে বসন্ত বিহার থানায় একটি এফআইআর দায়ের করেন নিগৃহীতা। ঘটনাস্থল গুরগাঁও বলে বসন্ত বিহার থানা একটি ‘জিরো এফআইআর’ দায়ের করে মামলাটি গুরগাঁও পুলিশের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে।

ডিএলএফ এসিপি রমেশ পাল জানিয়েছেন, ‘তিন অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে সেক্টর ২৯ থানার আঁওতায় একটি গণধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নিগৃহীতা দিল্লির মুনিরকা অঞ্চলের বাসিন্দা। তাঁর একটি বছর দুয়েকের পুত্রসন্তান রয়েছে।

এফআইআর-এ নিগৃহীতা অভিযোগ করেছেন, রবিবার সন্ধে ৮টা নাগাদ সাহারা মলের তিনতলার এক পানশালায় তিনি পৌঁছন। সেখানে বন্ধুদের সঙ্গে প্রায় চার ঘণ্টা কাটিয়ে বের হন। রাত ১২টা নাগাদ অটোতে তিনি বেভারলি পার্ক-১ এলাকায় পৌঁছলে একটি সাদা রঙের গাড়ি লিফ্ট দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। পুলিশের দাবি, ওই গাড়িতে তিনজন পুরুষ এবং এক মহিলা উপস্থিত ছিল।

অভিযোগ, ইফকো চক থেকে সুশান্ত লোক যাওয়ার পথে আচমকা গাড়িটি গল্ফ কোর্স রোডের দিকে বাঁক নেয়। এরপর নির্জন এক স্থানে গাড়িটিকে ওই তিনজন পুরুষ থামায়। তারপর পালা করে তিন দুষ্কৃতী যুবতীকে ধর্ষণ করে। রাত ২টো নাগাদ যেখান থেকে তোলা হয়েছিল, সেই জায়গায় পৌঁছে গাড়ি থেকে তাঁকে ঠেলে ফেলে দিয়ে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। নিগৃহীতার অভিযোগ, গাড়িতে উপস্থিত মহিলা তাঁর পরিচিত। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি তার বিরুদ্ধে নিগ্রহের অভিযোগ দায়ের করেছিলেন নিগৃহীতা যুবতী। – সূত্র : এই সময়






মন্তব্য চালু নেই