মেইন ম্যেনু

‘তাইওয়ানকে দাবার ঘুঁটি বানাবেন না’

তাইওয়ানকে দাবার ঘুঁটি হিসেবে ব্যবহার না করতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তাইপেই। সোমবার দেশটির চীন সম্পর্ক বিষয়ক মন্ত্রী ক্যাথরিন চ্যাং এ আহ্বান জানিয়েছেন।

চলতি সপ্তাহে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। এতে চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক আরো গতিশীল করার ব্যাপারে জোর দেওয়া হয়েছে। অবশ্য এর আগে গত জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের ফোনালাপ এবং এক চীন নীতি থেকে সরে আসার ঘোষণা দেওয়ার পর ওয়াশিংটন-বেইজিং সম্পর্কে টানপোড়েন দেখা দেয়। সম্প্রতি ট্রাম্প তার আগের অবস্থান থেকে সরে আসার ঘোষণাও দিয়েছেন। চীনের সঙ্গে যু্ক্তরাষ্ট্রের এই সম্পর্কের নতুন মোড় উদ্বেগে ফেলেছে তাইওয়ানকে।

সোমবার ক্যাথরিন চ্যাং বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ও চীন যখন তাদের সম্পর্কের উন্নয়ন ঘটাবে তখন আমরা তাইওয়ানকে তাদের নিজেদের স্বার্থে অথবা দাবার ঘুঁটি হিসেবে ব্যবহার না করার আহ্বান জানাচ্ছি।’

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার স্বার্থে তাইপেইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলার জন্য বেইজিংয়ের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছেন ক্যাথরিন।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৯ সালের কমিউনিস্ট বিপ্লবের পর দ্বীপ রাষ্ট্র তাইওয়ান চীনের মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। তাইওয়ানে পৃথক সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়। তবে তাইওয়ানকে স্বাধীন নয় বরং নিজেদেরই আপত বিচ্ছিন্ন প্রদেশ বলে ভাবে চীন। এই অঞ্চলকে আবার মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে একত্র করতে চায় চীন।






মন্তব্য চালু নেই