মেইন ম্যেনু

তাইওয়ানের কাছে ফের অস্ত্র বিক্রি করছে যুক্তরাষ্ট্র

তাইওয়ানের কাছে ১৮৩ কোটি মার্কিন ডলারের অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে ওবামা প্রশাসন। বুধবার কংগ্রেসকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ ঘটনায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে চীন।

চার বছর আগে যুক্তরাষ্ট্র সর্বশেষ তাইওয়ানের কাছে অস্ত্র বিক্রি করেছিল। ওই সময় চীন এ ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছিল। তাইওয়ানকে নিজেদেরই অঙ্গরাজ্য মনে করে চীন। দেশটির ধারণা সাময়িকভাবে তাইওয়ান বিচ্ছিন্ন হলেও একসময় এটি মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে সংযুক্ত হবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তারা এর আগে ‘তাইওয়ান রিলেশন অ্যাক্টের’ আওতায় ১২০০ কোটি ডলারের চুক্তি করেছিল। নতুন করে এই অস্ত্র সরবরাহ সেই চুক্তিরই অংশ।

১৮৩ কোটি ডলারের বিনিময়ে তাইওয়ান যেসব অস্ত্র পাচ্ছে তার মধ্যে রয়েছে দুটি ফ্রিগেট, ট্যাংক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র, জল ও স্থলে চলাচল করতে পারে এমন সামরিক যানসহ অন্যান্য সমরাস্ত্র। মার্কিন কংগ্রেসের অনুমোদন পেলে ৩০ দিনের মধ্যে এই অস্ত্রচুক্তি বাস্তবায়িত করতে পারবে ওবামা প্রশাসন।

এদিকে এ ঘটনার পর বেইজিংয়ে নিযুক্ত মার্কিন দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্সকে ডেকে পাঠিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। চীনা বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, যেসব কোম্পানি তাইওয়ানকে অস্ত্র সরবরাহ করবে চীন তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে।

চীনের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঝেং জিগুয়াং বলেছেন, ‘তাইওয়ান চীনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাইওয়ানের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র বিক্রির নিন্দা জানাচ্ছে চীন।’






মন্তব্য চালু নেই