মেইন ম্যেনু

তাইওয়ানের ভূমিকম্পের দু দিন পর জীবিত নারী উদ্ধার

তাইওয়ানে ভয়াবহ ভূমিকম্পের দু’ দিন পর ১৭তলা ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে একজন জীবিত নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে আরো দু’জন জীবিত পুরুষ উদ্ধার করেছিল উদ্ধারকর্মীরা। ওই ভূমিকম্পে এ পর্যন্ত ৩৫ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন আরো শতাধিক মানুষ।

শনিবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টার দিকে তাইওয়ানের তাইনান শহরে ওই ভূমিকম্প অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে এর মাত্র ছিল ৬ দশমিক ৪। এ ভূমিকম্পে একটি ১৭তলা ভবনসহ বেশ কয়েকটি ভবন ভেঙে পড়ে। তাইনান শহরের আবাসিক এলাকার ‘গোল্ডেন ড্রাগন’ নামের ওই বহুতল ভবনের ধ্বংসাবশেষের নিচে চাপা পরেই বেশিরভাগ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এর নিচে এখনো আটকা পড়ে আছে আরো ১১৭ জন।

ভূমিকম্পের দু’ দিন পর সোমবার ধ্বংসস্তূপ থেকে তাসাও উয়েই লিং নামের এক নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ভূমিকম্পে তার দু বছর বয়সী ছেলেটি মারা গেছে।

এর আগে রোববার ২০ বছর বয়সী হুয়াং কুয়াং-উইই কে ধ্বংসস্তুপ থেকে টেনে তুলছিল উদ্ধারকর্মীরা। তাদের সহায়তায় ২০ বছর বয়সী আরেক তরুণ কুও নিজেই ধ্বংসস্তুপের ভেতর থেকে উপরে উঠে আসতে সক্ষম হন। উদ্ধারের পর তাদের দুজনকেই হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে রয়টার্স জানিয়েছে।

এ সম্পর্কে তাইনানের মেয়র উইলিয়াম লাই বলেছেন, তাসাও ও লিকে উদ্ধারের পর উদ্ধারকর্মীদের মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে। তারা ধ্বংসস্তূপ থেকে আরো জীবিতকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে। মেয়র সাংবাদিকদের আরো বলেছেন,‘ক্ষুদ্রতম সম্ভাবনা থাকার পরও আমরা আশা ছাড়ব না।’

এদিকে সোমবার উদ্ধারকর্মীরা ধ্বংসস্তূপের মধ্যে লি সুং তিয়ান নামে আরো এক জীবিত ব্যক্তিকে খুঁজে পেয়েছে বলে রয়টার্স জানিয়েছে। এখনো তার জ্ঞান আছে এবং তিনি উদ্ধারকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেছেন বলেও জানা গেছে।






মন্তব্য চালু নেই