মেইন ম্যেনু

তাজমহলে আগ্রহ হারাচ্ছে বিদেশিরা

সপ্তদশ শতকের প্রেমের সৌধের টানে নাকি আর ভিড় জমাচ্ছেন না দেশ-বিদেশের মানুষেরা। তাজমহল দর্শনে দিন দিন আগ্রহ হারাচ্ছে বিদেশি পর্যটকরা। সম্প্রতি এক পরিসংখ্যান ঘেঁটে এমন ইঙ্গিতিই মিলেছে। টিকিট বিক্রির রেকর্ড দেখিয়ে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (এএসআই) জানিয়েছে, গত তিন বছর ধরে বিদেশি পর্যটকদের সংখ্যা কমেছে।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০১২-তে ৭.৯ লাখ বিদেশি পর্যটক তাজমহল দেখতে এসেছিলেন। পরের দু’বছরে এর ট্রেন্ড নিম্নমুখী। ’১৩ এবং ’১৪-তে যথাক্রমে ৭.৪ লাখ ও ৬.৯ লাখ। এএসআই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, গত বছরের তুলনায় যা ৬.৮ শতাংশ পড়েছে। যদিও ২০১০ থেকে ’১২-র মধ্যে এই গ্রাফটি ঊর্ধ্বমুখী ছিল। সে সময়ের মধ্যে পর্যটকের ভিড় বাড়ছিল বছরে ১০-১৫ শতাংশ হারে। ২০১০-এর ৬.১ লাখ ট্যুরিস্টের তুলনায় পরের বছর তা বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ৬.৭ লাখে।

তবে পর্যটক কমার আসল কারণ খুঁজতে গেলে আগরার পরিকাঠামোগত বেহাল দশাকেই দায়ী করছেন ওয়াকিবহাল মহল। এর সঙ্গে যোগ করুন দিন দিন বেড়ে চলা অপরাধের সংখ্যা এবং আইন-শৃঙ্খলার অবনতির বিষয়টিও।

ফেডারেশন অব ট্র্যাভেল অ্যাসোসিয়েশন অব আগরা-র প্রেসিডেন্ট রাজীব তিওয়ারির দাবি, “এখানে বিদেশিদের সঙ্গে কোন অপরাধমূলক ঘটনা ঘটলে তা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে ফলাও করে লেখা হয়।” সম্প্রতি শহরের একটি হোটেলে এক বিদেশি দম্পতি ড্রাগ ওভারডোজে মারা যান বলে অভিযোগ ওঠে। রাজীব তিওয়ারির মতে, এ ধরনের ঘটনায় নেগেটিভ পাবলিসিটি হয়।

তবে শুধুমাত্র ক্রমবর্ধমান অপরাধের ঘটনাই নয়, ট্র্যাভেল ইন্ডাস্ট্রি-র শীর্ষ কর্তারা মনে করেন, ট্র্যাফিক জ্যাম আর দূষণের জন্যও তাজের থেকে মুখ ফেরাচ্ছেন বিদেশিরা।






মন্তব্য চালু নেই