মেইন ম্যেনু

তামিম-দিলশানের ব্যাটিং ঝড়ে লণ্ডভণ্ড সিলেট

খাদের কিনারা থেকে ঘুরে দাঁড়ালো চিটাগাং ভাইকিংস। বুধবার সিলেট সুপারস্টার্সকে ১০ উইকেটে উড়িয়ে দিয়ে ( ২৩ বল হাতে রেখে) পরের রাউন্ডে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখলো তামিমের দল। চলতি বিপিএলে এটা সবচেয়ে বড় ব্যবধানের জয়।

১৪০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে কোন উইকেটই হারাতে হয়নি চট্রগ্রামকে। এদিন বিধ্বংসী মেজাজে হাজির হন বিশ্বের দুই বিখ্যাত ওপেনার তামিম ইকবাল ও টিম দিলশান। সোহেল তানভীর, রুবেল, রাজ্জাক, আফ্রিদি। কোন বোলারকেই পাত্তা দেননি তারা। দুজনই অপরাজিত থাকেন ৬৭ রান করে। ৫১ বল খেলেন তামিম। আর দিলশান খেলেন ৪৬ বল।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানি অল রাউন্ডার শহিদ আফ্রিদির ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৩৯ রান (৯ উইকেটে) তুলে সিলেট সুপার স্টার্টস। চলতি মৌসুমে এটা আফ্রিদির প্রথম ম্যাচ। নিজের প্রথম ম্যাচেই দলকে দারুণ সার্ভিস দিলেন তিনি।
এদিন শুরুতেই মারাত্মক ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে সিলেট সুপারস্টার্স।২২ রানে নেই চার উইকেট। এরমধ্যে ০ রানে ফিরেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। কঠিন সময়ে ব্যাট করতে নেমে দারুণ সাহস দেখান আফ্রিদি। ৩৩ বলে পূরণ করেন হাফ সেঞ্চুরি। আফ্রিদিকে বেশ কিছুক্ষণ সঙ্গ দেন তার স্বদেশী সোহেল তানভীর। ৪১ বলে ৬২ রানের ভালো ইনিংস করে ফিরেন আফ্রিদি। সোহেল তানভীর করেন ১৭। চিটাগাং ভাইকিংসের পক্ষে শফিউল নেন ২ উইকেট।
ছয় ম্যাচের পাঁচটিতে হেরে পয়েন্ট টেবিলের সবার নিচে মুশফিকুর রহিমের সিলেট সুপার স্টার্স।






মন্তব্য চালু নেই