মেইন ম্যেনু

তালেয়াকে আশ্বস্ত করলো ব্রিটিশ হাইকমিশন

জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক শফিক রেহমানের গ্রেপ্তারের বিষয়টি ঢাকাস্থ ব্রিটিশ হাইকমিশনকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছেন তার স্ত্রী তালেয়া রেহমান। জবাবে ব্রিটিশ হাইকমিশন জানিয়েছে, তারাও বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছেন।

রোববার দুপুরে রাজধানীর বারিধারায় অবস্থিত ব্রিটিশ হাইকমিশনে যান তালেয়া রেহমান। তিনি শফিক রেহমানের গ্রেপ্তারের বিষয় নিয়ে হাইকমিশনের পলিটিক্যাল ডিপার্টমেন্টের সঙ্গে কথা বলেন এবং যে মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সে সংক্রান্ত কাগজপত্রও তাদের কাছে পেশ করেন।

সাপ্তাহিক ‘মৌচাকে ঢিল’র সম্পাদক শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেহা রেহমানের বরাত দিয়ে সাপ্তাহিকটির সহকারী সম্পাদক সজীব ওনাসিস এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, পূর্বনির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী তালেয়া রেহমান (রোববার) দুপুরে ব্রিটিশ হাইকমিশনে গিয়ে সাংবাদিক শফিক রেহমানের গ্রেপ্তার সম্পর্কিত সার্বিক বিষয় অবহিত করেছেন। হাইকমিশনও বিষয়টি অবগত রয়েছেন বলে তালেহা রেহমানকে জানিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, ব্রিটিশ নাগরিক হিসেবে শফিক রেহমানকে রাজনৈতিকভাবে কোনো হয়রানি করা হচ্ছে কি না কিংবা গ্রেপ্তার থাকাবস্থায় তার প্রতি অন্যায় আচরণ করা হচ্ছে কি না, সেই বিষয়গুলো দেখার জন্য হাইকমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তালেয়া রেহমান। জবাবে হাইকমিশন জানিয়েছে, তারাও বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করছেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার (১৬ এপ্রিল) সাংবাদিক শফিক রেহমানকে তার নিজ বাসায় সাংবাদিক পরিচয়ে প্রবেশের পর ধরে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ। প্রথমে দেশদ্রোহিতার মামলায় তাকে গ্রেপ্তারের কথা জানানো হলেও পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। একই দিন আদালত তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যায়যায় দিন পত্রিকার সাবেক এই সম্পাদক ও লাল গোলাপ টকশোর উপস্থাপক শফিক রেহমানের বয়স এখন ৮২ বছর। তিনি বিএনপি ঘনিষ্ট বুদ্ধিজীবী হিসেবে পরিচিত।






মন্তব্য চালু নেই