মেইন ম্যেনু

তিনবার মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছি, কিন্তু রাজি হইনি

তিন তিনবার মন্ত্রীত্ব দেয়ার প্রস্তাব পেয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। তারপরও তিনি মন্ত্রিত্ব গ্রহণ করেননি।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) নারায়ণগঞ্জে ইসদাইরে বাংলাভবন কমিউনিটি সেন্টারে মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় শামীম ওসমান নিজে এ কথা বলেন।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী সম্প্রতি উপমন্ত্রীর মর্যাদা পাওয়া প্রসঙ্গ টেনে শামীম ওসমান বলেন, ‘উপমন্ত্রীর মর্যাদা শেষ সময়ে দেয়া হলেও সামনে যেহেতু আনোয়ার ভাই মেয়র হবেন সেহেতু তিনি এটাকে উপভোগ করতে পারবেন। আর আমাকে এর আগেও তিনবার মন্ত্রীত্ব দেয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু আমি নেই নাই। কারণ আমি জনগণের জন্য কাজ করতে চাই।’

বিগত সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাংবাদিক শফিক রেহমানের বাসায় বসে ৫ মিলিয়ন ডলার লেনদেনের মাধ্যমে বিএনপির প্রার্থীকে বসিয়ে (প্রত্যাহার করে) আইভীকে জয়ের সুযোগ করে দেয়া হয়েছিল বলেও মন্তব্য করেন ওসমান। তিনি বলেন, ‘আইভী শুধু আমার বিরুদ্ধে কথা বললে সমস্যা ছিল না। কিন্তু আমার নেত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগ নিয়েও বিষোদগার করেছেন। আমাকে খালেদার মতো খুনি গডফাদার বলেছে। কিন্তু আমার আগের দিন আর নাই। আমার সেই বয়স আর আগের শামীম ওসমান থাকলে অনেক কিছু দেখিয়ে দিতাম। ধোপার মতো ধুয়ে ফেলতাম।’

আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যেন মেয়র পদে আইভী কোনোভাবেই দলের নমিনেশন না পায় সেদিকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘আইভী আওয়ামী লীগের কেউ না। তার মনোনয়ন ঠেকাতে হবে আর সেজন্য আমাদের এক থাকতে হবে। আমাদের এখন থেকেই আমাদের ত্যাগী নেতাকর্মীদের একত্রিত হতে হবে।’






মন্তব্য চালু নেই