মেইন ম্যেনু

তিনি ফেরিওয়ালা, তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা…

তিনি ফেরিওয়ালা, তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। হ্যা, যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করলেও নিজের জীবনযুদ্ধে ক্লান্ত তিনি। নাম তার ইব্রাহিম মন্ডল। কলারোয়া উপজেলার চন্দনপুর ইউনিয়নের গয়ড়া গ্রামের মৃত মতিয়ার রহমানের ছেলে। বীরাঙ্গনা সৈনিক হিসাবে ৮নং সেক্টরে যুদ্ধে অংশগ্রহন করায় স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদপত্র পেয়েছেন। ভাদিয়ালী বিপরীতে ভারতের হাকিমপুর মুক্তিযোদ্ধা অপারেশন ক্যাম্পে তার ৮০৬নং তালিকায় নাম রয়েছে। তার কেএইচ নং-২২১১৯৪। অথচ বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা তালিকতায় তার নাম অন্তভুক্ত এখন পর্যন্ত হয়নি।

জানা গেছে, নিজের বাজি রেখে ইব্রাহিম মন্ডল যুদ্ধ করেছিলেন দেশকে বাচিয়ে শত্রু মুক্ত করতে। আজ সেই বীর মুক্তিযোদ্ধার খোজ কেউ রাখে না। বর্তমানে এই অসহায় মুক্তিযোদ্ধা জীবন নির্বাহ করছেন ফেরিওয়ালা হিসেবে। একটি অর্ধভাঙ্গা বাইসাইকেল নিয়ে বাড়িতে বাড়িতে ফেরি করে বাচ্চাদের খেলনা ও বিভিন্ন ধরনের মালামাল বিক্রি করেন তিনি।

তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, তিনি ৮নং সেক্টরে যুদ্ধে অংশগ্রহন করায় স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদপত্র পেয়েছেন। ভারতের হাকিমপুর মুক্তিযোদ্ধা অপারেশন ক্যাম্পে তার ৮০৬নং তালিকায় নাম রয়েছে। তার কেএইচ নং-২২১১৯৪। অথচ বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা তালিকতায় তার নাম অন্তভুক্ত এখন পর্যন্ত হয়নি। নীরিহ এই বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম গেজেট ভুক্ত না হওয়ায় তিনি মানবেতর জীবন যাপন করছে। বিষয়টি নিরসনে ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই