মেইন ম্যেনু

তিন দশকের মধ্যে ভয়াবহতম খরায় দ. আফ্রিকা

১৯৮০ সালের পরে এই প্রথম ভয়াব্হ খরার কবলে পড়লো দক্ষিণ আফ্রিকা। সরকারি কর্তাব্যক্তিরা বলছেন, এতে কম করে হলেও ২৭ লাখ গৃহস্থ্য ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

লোনাক্স মাবাসো নামের একজন সরকারি মুখপাত্র বলেন, ‘এই খরার কারণে তাদের জীবনযাত্রা এবং অর্থনীতি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বাঁধে পানি সবসময়ের চাইতে অনেক কম। সরকার সাধ্যমত চেষ্টা করছে পরিস্থিতি সামাল দিতে কিন্তু বিষয়টা এত সহজ পর্যায়ে নেই। ধনী গরিব সবাই এখন আক্রান্ত।’

আফ্রিকার স্বরাষ্ট্র দপ্তর থেকে এরই মধ্যে কাওয়াজুলু নাতাল এবং পাশের প্রদেশগুলকে দুর্যোগ কবলিত বলে চিহ্নিত করা হয়েছে এবং বলা হয়েছে, আশেপাশের ৪টা প্রদেশের প্রায় ৬ হাজার ৫০০ সম্প্রদায় পানি স্বল্পতায় আক্রান্ত হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার রাজধানী প্রেটোরিয়ায় এরই মধ্যে পরিমিত পানি খরচের প্রক্রিয়া চালু হয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, খুব শিগগিরই পুমালাঙ্গা এবং লিমপোপো নামের আরও দুটি জায়গার কৃষি ব্যবস্থা খরায় আক্রান্ত হবে। এ দুটো জায়গা এখনো পর্যালোচনায় রাখা হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার ইতোমধ্যে প্রায় ২ কোটি ৬০ লাখ ডলার বরাদ্দ করেছে খরা চলাকালীন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য।






মন্তব্য চালু নেই