মেইন ম্যেনু

তুরস্কে প্রায় ১৩ হাজার পুলিশ বরখাস্ত

তুরস্কের ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লা গুলেনকে সমর্থনের অভিযোগে দেশটির ১২ হাজার ৮০১ পুলিশ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার তুরস্কের পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

সিএনএন টার্কের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরের জুলাইয়ে তুরস্কের ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত ফেতুল্লা গুলেনকে দায়ী করা হয়। গুলেনের সমর্থকদের চিহ্নিত করতে পুলিশ বাহিনীর মধ্যে তদন্ত শুরু করে তুরস্কের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। পরে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পুলিশ সদস্য বরখাস্তের সিদ্ধান্ত হয়।

বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য বরখাস্তের সিদ্ধান্ত এমন সময়ে এলো, যার মাত্র একদিন আগে জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরো তিন মাসের জন্য বাড়ানো হয়। সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকেই তিন মাস ধরে তুরস্কে জরুরি অবস্থা জারি ছিল।

তুরস্ক পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়, দেশজুড়ে দুই হাজার ৫২৩ পুলিশ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তুরস্ক পুলিশের মোট সদস্যসংখ্যা দুই লাখ ৫০ হাজার।

চলতি বছরের জুলাইয়ে তুরস্কে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের পর দেশটির পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা ও আইনজীবী এবং সামরিক বাহিনীর এক লাখ সদস্যকে বরখাস্ত অথবা চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। এ ছাড়া সেনা অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার অভিযোগ ৩২ হাজার মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গত সপ্তাহে এক ভাষণে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরো বাড়ানোর পক্ষে মত দেন। তিনি বলেন, ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানে জড়িতদের ধরতে আরো সময় প্রয়োজন। প্রয়োজনে এক বছরের বেশি সময় জরুরি অবস্থা রাখার কথা বলেন তিনি।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেতুল্লা গুলেনকে ফেরত পাঠাতে মার্কিন সরকারের প্রতি আহ্বান জানায় তুরস্কের এরদোয়ান সরকার। তবে বরাবরই এমন আবেদনে সাড়া দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র। আর ব্যর্থ অভ্যুত্থানের সময় থেকেই এর নিন্দা জানান ফেতুল্লা গুলেন। একই সঙ্গে ব্যর্থ অভ্যুত্থানে কোনো ধরনের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই