মেইন ম্যেনু

তুরস্কে ১২০০ সেনার মুক্তি

ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের পর তুরস্কে আটক এক হাজার ২০০ সেনাসদস্যকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। অভ্যুত্থানের পর এই প্রথম প্রধান সন্দেহভাজন আটকদের মুক্তি দেয়া হয়েছে বলে শনিবার আঙ্কারার একজন প্রসিকিউটর জানিয়েছেন।

আঙ্কারার প্রধান প্রসিকিউটর হারুন কোদালাক বলেন, গোপনীয়তার সঙ্গে আটক সেনাদের মুক্তি দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, অভ্যুত্থান চেষ্টায় জড়িত নন এমন কর্মকর্তাদের দ্রুত চিহ্নিত করা হচ্ছে।

তুরস্ক সরকার গত শুক্রবারের সেনা অভ্যুত্থান চেষ্টা সম্পর্কে বলছে, সেনা অভ্যুত্থান চেষ্টার পেছনে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত দেশটির নির্বাসিত মুসলিম নেতা ফেতুল্লাহ গুলেন দায়ী এবং সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সেনাবাহিনী, পুলিশ ও বিচার বিভাগ ব্যবহার করে তিনি সরকার উৎখাতের পরিকল্পনা করেছিলেন। তবে সেনা অভ্যুত্থান চেষ্টার সঙ্গে নিজের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন গুলেন।

আন্তর্জাতিক সমালোচনা সত্ত্বেও দেশটির অন্তত ৬০ হাজার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী আটক অথবা বরখাস্ত করা হয়েছে। দেশটির শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, চাকরিচ্যুতদের মধ্যে বেসরকারি স্কুল শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অধিকাংশ অনুষদ প্রধানরা লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছেন। ২৪টি রেডিও এবং টিভি চ্যানেলের লাইসেন্সও বাতিল করা হয়েছে। অভ্যুত্থান চেষ্টায় অন্তত ৩০০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

দেশটির বিরোধী দলগুলো সেনা অভ্যুত্থান চেষ্টার নিন্দা জানিয়েছে। তুরস্কে আইনের শাসন বজায় রাখতে তাদের সংকল্পের কথা জানিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই