মেইন ম্যেনু

তুর্কি সেনা প্রত্যাহারের দাবিতে ইরাক

মসুল শহর থেকে তুর্কি সেনাদের সরিয়ে নেয়ার দাবি করেছে ইরাক সরকার। ইরাকি সেনাদের প্রশিক্ষণের জন্য মসুলে কয়েক শ’ তুর্কি সেনা মোতায়েনের মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরেই এ দাবি করেছেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদি।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, সে দেশে তুর্কি সেনাদের উপস্থিতিকে ইরাকের সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘণ বলে মনে করছেন আবাদি। তাই তিনি ইরাকি ভূখণ্ড থেকে তুর্কি সেনা সরিয়ে নেয়ার দাবি করেছেন। তবে ইরাকের এ দাবির বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি তুরস্ক।

স্থানীয় কুর্দি বাহিনীকে প্রশিক্ষণের জন্য মসুলের বাশিকা এলাকায় প্রায় দেশড় তুর্কি সেনা মোতায়েন করার খবর প্রকাশিত হওয়ার পর এ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করল ইরাক।

এর আগে গত মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদি বলেছিলেন,‘আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আমাদের দেশের মাটিতে কোনো বিদেশি সেনার প্রয়োজন নেই। তাই তার সরকার ইরাকের কোনো এলাকায় কোনো বিদেশিদের সামরিক অভিযান চালান এবং বিদেশি সেনা বা ‘বিশেষ’ সেনা মোতায়েনের অনুমতি দেবে না।’ মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাস্টোন কার্টার যুক্তরাষ্ট্র ইরাকে ‘বিশেষ’ সেনা মোতায়েন করার ঘোষণা দেয়ার প্রেক্ষিতে তিনি এ মন্তব্য করেছিলেন।

গতবছরের জুলাই মাসে মসুল দখল করে নেয় জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট সংক্ষেপে আইএস। এরপর থেকে এটি তাদের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা করার পরও মসুল থেকে জিহাদিদের হঠাতে পারেনি বাগদাদ সরকার।






মন্তব্য চালু নেই