মেইন ম্যেনু

তুষ্টির করা মামলা কোর্টমার্শালে পাঠানো স্থগিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নুসরাত জাহান তুষ্টিকে নির্যাতনের ঘটনায় তার স্বামী মেজর নাজির উদ্দিনের বিরুদ্ধে করা মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। এই আদেশের ফলে ওই মামলা কোর্ট মার্শালে নেওয়ার বিষয়টি স্থগিতই থাকছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

সোমবার রাষ্ট্রপক্ষের করা লিভ টু আপিল খারিজ করে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনীক আর হক।

এর আগে গত ১২ আগস্ট নারী নির্যাতন আইনে করা অভিযোগের বিচার কোর্ট মার্শালে চলতে পারে কি না, এ বিষয়ে করা রিটের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ তুষ্টিকে নির্যাতনের ঘটনায় করা মামলা স্থগিত করে দেন। সেই সঙ্গে ওই মামলার নথি কোর্ট মার্শালে বিচারের জন্য পাঠাতে সেনা সদর দপ্তর থেকে যে চিঠি টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়েছিল, তার কার্যকারিতাও স্থগিত করা হয়।

তুষ্টির বাবা বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নূরুল ইসলাম ভূঁইয়ার করা রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি করে হাইকোর্ট রুলসহ ওই আদেশ দেন।

ওই আদেশ স্থগিতের জন্য রাষ্ট্রপক্ষ চেম্বার আদালতে আবেদন নিয়ে গেলে বিচারক হাইকোর্টের আদেশের কার্যকারিতা স্থগিত করে বিষয়টি নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান।

তুষ্টির আইনজীবী ব্যারিস্টার অনীক আর হক জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএর শিক্ষার্থী তুষ্টিকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে স্বামী মেজর নাজির উদ্দিনের বিরুদ্ধে ২ এপ্রিল টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা হয়।

তিনি বলেন, টাঙ্গাইলে এ মামলার বিচারকাজ চলা অবস্থায় সেনা সদর দপ্তরের এরিয়া কমান্ডার (লজিস্টিকস) মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান খান গত ১১ মে এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি চিঠি দেন। চিঠিতে বলা হয়, কোর্ট মার্শালে নাজির উদ্দিনের বিচার করতে মামলার নথি প্রয়োজন।

তিনি জানান, এ চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেই গত ১০ আগস্ট হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন তুষ্টির বাবা নূরুল ইসলাম।






মন্তব্য চালু নেই