মেইন ম্যেনু

তৃতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের দারুণ জয়

ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম টেস্টে জয় দিয়ে ভালোই সূচনা করেছিল ইংল্যান্ড। কিন্ত দ্বিতীয় টেস্টে তাদের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে জয় পায় সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। তবে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে আবারো চালকের আসনে ইংলিশরা। এজবাস্টন টেস্টে তৃতীয় দিন শেষেই অসিদের বিপক্ষে ৮ উইকেটের দূর্দান্ত জয় পেয়েছে অ্যালিস্টার কুকের দল।

তৃতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের জয়ে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছেন পেস বোলার জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টিভেন ফিন। প্রথম দিনে আগুণে পেস বলে অস্ট্রেলিয়া শিবিরকে ল-ভ- করে দেন অ্যান্ডারসন। ফলে ওই দিন মাত্র ১৩৬ রানেই গুটিয়ে যায় অসিদের ইনিংস। এরপর দ্বিতীয় দিন ব্যাট করতে নেমে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৮১ রান করে ইংল্যান্ড।

এজবাস্টনে তৃতীয় দিনটিও ছিল স্বাগতিকদেরই। তবে শুক্রবার ব্যক্তিগত নবম ওভারের সময় ইংলিশদের সেরা বোলার অ্যান্ডারসন ইনজুরিতে পড়েন। তবে সাইড স্ট্রেইনের জন্য তিনি মাঠের বাইরে চলে গেলেও টর্নেডোর মতো অস্ট্রেলিয়া শিবিরে আঘাত হানেন ফিন। তার আগুন ঝরানো বলেই দিকহারা হয়ে পড়ে অস্ট্রেলিয়া শিবির। নিজেদের সেরাটা দিয়ে তিনি একাই তুলে নেনে ৬টি মূল্যবান উইকেট।

তৃতীয় দিনে অস্ট্রেলিার ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ সংগ্রহটি আসে ডেভিড ওয়ার্নারের (৭৭) ব্যাট থেকে। এরপর পিটার নেভিল (৫৯) এবং মিচেল স্টার্ক ৫৮ রান করেন। দ্বিতীয় দিনে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৬৫ রান করতে সমর্থ্য হয় অস্ট্রেলিয়া।

স্টিভেন ফিনের ৬ উইকেট ছাড়া ইংল্যান্ডের হয়ে একটি করে উইকেট নেন অ্যন্ডারসন, স্টুয়ার্ট ব্রড, মঈন আলী এবং বেন স্টোকস। তৃতীয় দিনে সব মিলিয়ে জয়ের জন্য ১২১ রানের লক্ষ্য নির্ধারণ হয় ইংল্যান্ডের সামনে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র দুই উইকেট খুইয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় স্বাগতিকরা। দলের হয়ে ইয়ান বেল অপরাজিত থেকে সর্বোচ্চ ৬৫ রান করেন। ব্যক্তিগত ৩৮ করে অপরাজিত ছিলেন জো রুট।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে একটি করে উইকেট নিয়েছেন মিচেল স্টার্ক ও জস হ্যাজলেউড। তবে তৃতীয় টেস্টে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য ম্যাচ সেরার পুরস্কার উঠে ইংল্যান্ডের স্টিভেন ফিনের হাতেই।

তৃতীয় টেস্টে জয়ের ফলে পাঁচ ম্যাচ অ্যাশেজ সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে রইল ইংল্যান্ড।






মন্তব্য চালু নেই