মেইন ম্যেনু

ত্বকের ক্লান্তি দূর করে সতেজ হয়ে উঠুন ঘরোয়া এই ৫ প্যাক ব্যবহারে

ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুশি। বছরে মাত্র দুটি ঈদ। তাই ঈদ নিয়ে সবার থাকে কিছু বাড়তি পরিকল্পনা। কিন্তু এই ঈদে কাজ কম বেশি সবাইকে করতে হয়। গৃহিনী হলে তো কথাই নেই! সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলে দৌড়ঝাঁপ। এত কাজের ভিড়ে অ্যাপায়ন করতে হয় অতিথীদের যেতে হয় দাওয়াতে। কাজের চাপে চেহারা হয়ে যায় মলিন, ক্লান্ত। এই মলিনতা দূর করে নিমিষে পেয়ে যান স্বাস্থ্যজ্বল ত্বক সহজ কিছু উপায়ে।

১। এক্সফলিয়েট করা

মলিন ত্বককে সজীব করে তোলার অন্যতম উপায় হল এক্সফলিয়েট। মধু এবং চিনির মিশ্রণ স্ক্রাব হিসেবে বেশ ভাল কাজ করে। মধু এবং চিনি মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করে লাগান। এটি ত্বক থেকে মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করবে। ৫ মিনিট ম্যাসাজ করে তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

২। হাইড্রেটিং মাস্ক

হাইড্রেটিং মাস্ক এক্সফলিয়েট হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। একটি পাত্রে টকদই অথবা দুধের সরের সাথে লেবুর রস, জয়ফল গুঁড়ো এবং হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এই প্যাকটি মুখ এবং ঘাড়ে ৫-১০ ম্যাসাজ করে লাগান। তারপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর গোলাপ জল লাগান। এই প্যাকটি আপনি স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

৩। লেবুর মাস্ক

সহজলভ্য লেবু ত্বকের ক্লান্তি দূর করে থাকে। লেবুর রস সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। ১০ মিনিট এটি ত্বকে রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এছাড়া মধু, লেবুর রস অথবা টকদই এবং লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

৪। চায়ের ব্যাগ

চোখের ক্লান্তির ছাপ সম্পূর্ণ চেহারায় পড়ে থাকে। তাই চোখের ক্লান্তি দূর করা গেলে মুখের ক্লান্তি অনেকখানি দূর করা সম্ভব হবে। চোখের কালি এবং ক্লান্তি দূর করতে টি ব্যাগ বেশ কার্যকর। দুটি টি ব্যাগ ফ্রিজে এক দুই ঘণ্টার জন্য রেখে দিন। এবার এটি বন্ধ চোখের উপর রাখুন। এভাবে কয়েক মিনিট থাকুন। তারপর টি ব্যাগ ফেলে দিন। এটি চোখের ফোলাভাব, ক্লান্ত ভাব দূর করে দেয়।

৫। শসা এবং পুদিনা পাতার প্যাক

সমপরিমাণ শসার রস এবং পুদিনা পাতার রস একসাথে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন, তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। শসার রস এক নিমিষে ত্বক থেকে ক্লান্তি দূর করে দেবে।






মন্তব্য চালু নেই