মেইন ম্যেনু

ত্বকের যত্নে ৬টি ঘরোয়া কার্যকরী টিপস

সুন্দর, মসৃণ কোমল ত্বকের জন্য ক্লিনজিং, টোনিং এবং ময়েশ্চারাইজিং করা অপরিহার্য। শুধু মাত্র স্ক্রাব এবং ফেসওয়াশ দিয়ে ত্বক সুস্থ রাখা সম্ভব হয় না। সুস্থ ত্বক পাবার জন্য নিয়মিত টোনিং করা প্রয়োজন। এটি ত্বক পরিষ্কার করে ত্বক টানটান রাখতে সাহায্য করে। বাজারে নানা ধরণের টোনার কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু বাজারের টোনার ব্যবহারে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঝুঁকি রয়েছে। তাই ঘরে তৈরি করে নিতে পারেন টোনার। সব ধরণের ত্বকের সাথে মানিয়ে যায় এমন কিছু টোনার নিয়ে আজকের এই ফিচার।

১। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এবং গ্রিন টি টোনার

১/৪ কাপ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এবং ৩/৪ কাপ গ্রিন টি একসাথে মিশিয়ে নিন। একটি তুলোর বলে এই মিশ্রণটি লাগিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন। এবার এটি ত্বকে ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। তারপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। অবশিষ্ট মিশ্রণ ফ্রিজে রেখে দিন। এই টোনারটি তৈলাক্ত এবং ব্রণ প্রবণ ত্বকের জন্য বেশ উপকারী।

২। শসা এবং টকদই

এক কাপ টকদইয়ের সাথে কিছু পরিমাণ শসার রস মিশিয়ে নিন। এবার এই মিশ্রণটি মুখ এবং ঘাড়ে ভাল করে লাগান। এটি ৫-১০ মিনিট ত্বকে রাখুন। তারপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি তৈলাক্ত এবং স্বাভাবিক ত্বকের জন্য উপযোগী।

৩। দুধ এবং গোলাপ জলের টোনার

চার চা চামচ কাঁচা দুধ এবং কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল একসাথে মিশিয়ে টোনার তৈরি করুন। একটি তুলোর বলে এই মিশ্রণটি ভিজিয়ে ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি দিনে দুইবার করুন। এই টোনারটি ত্বক নরম কোমল করতে সাহায্য করবে।

৪। লেবুর রস

শুধুমাত্র লেবুর রস টোনার হিসেবে ভালো কাজ করতে পারে। পুরো মুখে লেবুর রস লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। খুব দ্রুত ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে এটি বেশ কার্যকর।

৫। মধু, লেবুর রস এবং ডিমের টোনার

একটি ডিম ভাল করে ফেটে নিন। এরসাথে মধু এবং এক চা চামচ লেবুর রস একসাথে মেশান। এই টোনারটি মুখ এবং ঘাড়ে ভাল করে লাগিয়ে রাখুন ১০-১৫ মিনিট। তারপর শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৬। আপেলের টোনার

একটি আপেলের অর্ধেকটা কুচি করে কেটে রস বের করে নিন। এতে মেশান ২ টেবিল চামচ মধু। এই মিশ্রণ মুখে লাগান এবং ১০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণটি ফ্রিজে রেখে ১ সপ্তাহ ব্যবহার করতে পারবেন।






মন্তব্য চালু নেই