মেইন ম্যেনু

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে লাখো মোমবাতি হাতে প্রতিবাদ

শনিবার সিউলের রাস্তায় মোমবাতি জ্বালিয়ে প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইয়ের পদত্যাগ দাবি করেন লাখো জনতা। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইয়ের দুর্নীতি কেলেঙ্কারির ঘটনায় তার পদত্যাগের দাবিতে সিউলের রাজপথে ব্যাপক বিক্ষোভ চলছে।

শনিবার পার্কের বিরুদ্ধে ক্যান্ডেল-লিট র‌্যালিতে সাড়ে চার লাখ মানুষ অংশ নিয়েছে বলে স্থানীয়দের সূত্রে জানিয়েছে এএফপি। তবে পুলিশ এ সংখ্যাকে দুই লাখের বেশি বলতে রাজি নয়। টানা চার সপ্তাহ ধরে প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাইয়ের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ চলছে।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, গণবিক্ষোভ পার্কের সরকারকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিলেও প্রেসিডেন্ট পদত্যাগের কথা প্রত্যাখ্যান করেছেন। ১৯৮০র দশকের গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভের পর থেকে দক্ষিণ কোরিয়ায় এটিকে সবচেয়ে বড় গণসমাবেশ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

শনিবার বিক্ষোভকারীরা হাতে জ্বলন্ত মোমবাতি নিয়ে রাজপথে মিছিল করেন। এর আগে আয়োজকরা জানান, সিউলের বিক্ষোভ-সমাবেশে প্রায় পাঁচ লাখ লোক অংশ নেবেন। দেশের বিভিন্ন নগরীতে আরও প্রায় পাঁচ লাখ লোক বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন বলে তাদের দাবি। এখন পর্যন্ত পার্কের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ-সমাবেশ অনেক শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়ে আসছে। তবে শনিবার বিক্ষোভ-সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপস্থিতি অনেক বাড়ানো হয়।

প্রেসিডেন্টের ব্লু-হাউসের বিভিন্ন প্রবেশ পথে অনেক বাস ও ট্রাক দিয়ে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা হয়েছিল।

কোরিয়ান কনফেডারেশন অব ট্রেড ইউনিয়নের মুখপাত্র নম জিয়ং-সু বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ”আমরা আগের তিনটি সমাবেশের মতো শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করছি।” নম জানান, এ বিক্ষোভ-সমাবেশে হাজারো শিক্ষার্থীর ঢল নেমেছে।

পার্কের জনসমর্থন বর্তমানে ৫ ভাগে নেমে এসেছে। চলতি মাসের শুরুর দিকে তিনি জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন এই বলে যে, তিনি ব্যক্তিগত সম্পর্কের ওপর বড্ড বেশি আস্থা রেখেছিলেন। তিনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান তদন্তে সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তবে পদত্যাগে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

পার্কের তিন সহযোগীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়েরের ঘোষণা দিয়েছেন প্রসিকিউটরা। পার্ককে অভিশংসনের দাবি উঠেছে বিরোধীদের পক্ষ থেকে। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে তার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই