মেইন ম্যেনু

‘দপ্তরির হাতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার’

নোয়াখালীর হাতিয়া পৌর এলাকায় এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার এ ঘটনা ঘটে।

রোববার ওই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে স্কুলের দপ্তরি জাকির হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। নবম শ্রেণির ওই ছাত্রী নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় হাতিয়া থানায় মামলা করা হয়েছে।

মামলার বরাত দিয়ে হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন জানান, বাড়ি থেকে হেঁটেই স্কুলে যেত ওই স্কুলছাত্রী। গতকাল শনিবার অর্ধেক পথ যাওয়ার পর দপ্তরি জাকির হোসেন ওই মেয়েকে নাকে-মুখে নেশাজাতীয় পদার্থ দিয়ে অজ্ঞান করেন।

‘পরে অজ্ঞান অবস্থায় অন্য এলাকায় নিয়ে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। পরে আবার ওই পথে এনে মেয়েটিকে ফেলে রাখে। স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়’, যোগ করেন ওসি।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আনোয়ার হোসেন সেলিম জানান, মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেয়েটি পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে আজ রোববার স্কুলের দপ্তরি জাকিরকে আটক করে পুলিশ। মামলায় জাকির ছাড়াও এ ঘটনায় সহযোগিতার অভিযোগে ওই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকেও আসামি করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই