মেইন ম্যেনু

দরজা খুলে দিতে একটু দেরি হওয়ায়…

অর্থ ও মদ দুটোই যে ভয়ানক সর্বনাশের- তার যথার্থ উদাহরণ ভারতের কেরলের ধনকুবের মহম্মদ নিশাম। মদ্যপ অবস্থায় নিজের দারোয়ানকে গাড়ি দিয়ে পিষে মারার ঘটনায় আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলেন কেরলের এই ধনকুবের ব্যবসায়ী। অবশ্য ৩৯ বছরের মহম্মদ নিশামের শাস্তি ঘোষণা হবে আজ।

ঘটনাটা এক বছর আগের। নিশামের বাড়িতে দারোয়ানের কাজ করতেন ৫১ বছরের চন্দ্রবোস। নিশামকে দরজা খুলে দিতে মাত্র কয়েক সেকেন্ড দেরি করেছিলেন চন্দ্র। ক্ষিপ্ত নিশাম নিজের এসইউভি গাড়ি দিয়ে তাকে দেওয়ালে পিষে হিঁচড়ে নিয়ে যান প্রায় ৭০০ মিটার। তার পর চিৎকার করতে থাকেন, ‘এই কুকুরটা কিছুতেই মরবে না’। তারপর গাড়ি পিছিয়ে নিয়ে আবার ধাক্কা মারেন চন্দ্রকে। বুধবার রায় ঘোষণার সময় এ কথা জানান কেরলের ত্রিসূর আদালতের বিচারক। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পুলিশ জানিয়েছে, নিশাম ওই সময় মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় কয়েক দিন হাসপাতালে থাকার পর মারা যান চন্দ্র। ২০১৫-র জানুয়ারিতে গ্রেফতার হন নিশাম।

নিশাম কেরলের ‘বিড়ি কিং’ বলে পরিচিত। বিড়ি ব্যবসা ছাড়াও নির্মাণ ব্যবসাও আছে তার। মধ্যপ্রাচ্যে হোটেলও আছে ৫০০০ কোটি রুপি সম্পদের মালিক নিশাম। নিহত চন্দ্রর পরিবারের আইনজীবী নাশিমের ফাঁসির আর্জি জানিয়েছেন। পাঁচ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণেরও আর্জি জানিয়েছেন। আজ তার শাস্তি ঘোষণা করবে আদালত।






মন্তব্য চালু নেই