মেইন ম্যেনু

দরপতন অব্যাহত, দিশেহারা বিনিয়োগকারীরা

দরপতন যেন শেয়ারবাজারের পিছু ছাড়ছে না। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার টানা মূল্য সূচকের পতন সপ্তম দিন গড়াল। আর অব্যাহত দরপতনের কারণে দিশেহারা হয়ে পড়ছে বিনিয়োগকারী।

রোববার দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের মূল্য সূচকের পতনের মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন মূল্য সূচকের সঙ্গে উভয় বাজারে বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দরপতন হয়েছে। তবে আগের দিনের চেয়ে দুই বাজারেই লেনদেন সামান্য বেড়েছে। বাজারে বেশ কিছু দিন ধরে অস্থিরতা বিরাজ করছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সাধারণ বিনিয়োগকারীরা বাজারের প্রতি আস্থা হারাচ্ছে। বাজার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে অনেকে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে প্রথম কাজ হলো পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর অতিরিক্ত বিনিয়োগের সমন্বয়ের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নেয়া।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংক একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো সার্কুলার জারি করেনি। এ কারণে এখনো দ্বিধাদ্বন্দ্বে রয়েছে বিনিয়োগকারীরা। ফলে বাজারে ধারাবাহিক দরপতন চলছে।

এদিকে দরপতন ঠেকাতে আজ সোমবার বিকেল ৫টায় জরুরি বৈঠক ডেকেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বৈঠকে শীর্ষ ব্রোকার ও মার্চেন্ট ব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন বলে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেছেন, ‘সভায় বাজারের কিছু শীর্ষ ব্রোকারেজ প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের ডাকা হয়েছে। তাদের সাথে সামগ্রিক বাজার পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।’

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, রোববার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ২৪ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ১৭১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এ ছাড়া ডিএস৩০ সূচক ১৩ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫৯৯ পয়েন্টে এবং ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ৪৬১ কোটি টাকা, যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ১৯ কোটি বেশি। বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৪৪২ কোটি টাকা। ডিএসইতে মোট ৩১৩ টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৫টির, কমেছে ২০৯টির এবং অপরিবর্তত আছে ২৯টি প্রতিষ্ঠনের শেয়ার দর।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স ৫২ পয়েন্ট কমে ৭ হাজার ৭৯৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এ ছাড়া সিএসই৫০ সূচক ৭ পয়েন্ট কমে ৯৩৯ পয়েন্টে, সিএসই৩০ সূচক ৯৯ পয়েন্ট কমে ১১ হাজার ৮৯৬ পয়েন্টে, সিএসপিআই সূচক ৯২ পয়েন্ট কমে ১২ হাজার ৮২৫ পয়েন্টে এবং সিএসআই শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে ৮৯৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

সিএসইতে টাকার অংকে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২২২টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ৬২টির, কমেছে ১৩৯টির এবং অপরিবর্তিত আছে ২১টির শেয়ার দর।






মন্তব্য চালু নেই