মেইন ম্যেনু

দশ দিনে দুই এমপি হারালো ময়মনসিংহ

২ থেকে ১১ মে, মাত্র দশ দিনের ব্যবধান। এরই মধ্যে প্রিয় দুই নেতাকে হারিয়েছেন ময়মনসিংহবাসী। আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ হারিয়েছে তাদের গুরুত্বপূর্ণ দুই এমপিকে।

বুধবার সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী প্রমোদ মানকিন এমপি (ময়মনসিংহ-১, হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) মারা গেছেন। এর আগে ২ মে মারা যান সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. মজিবুর রহমান ফকির এমপি (ময়মনসিংহ-৩, গৌরীপুর)।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, মাত্র দশ দিনের ব্যবধানে দুই এমপিকে হারালাম। এটি দলের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। এমন ক্ষতি কখনই পুষিয়ে নেবার নয়। তারা আমৃত্যু দলের জন্য নিবেদিত ছিলেন। মানুষের জন্য, দেশের জন্য কাজ করেছেন। রাজনীতিতে তাদের অবদান জাতির কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

প্রমোদ মানকিন ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসনে চারবার এমপি নির্বাচিত হন। তিনি হালুয়াঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগেরও সভাপতি ছিলেন।

প্রমোদ মানকিন ১৯৩৯ সালের ১৮ এপ্রিল এক সম্ভ্রান্ত গারো পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। জন্মস্থান নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার বাকালজোড়া ইউনিয়নের রামনগর গ্রাম।

তিনি ১৯৬৩ সালে নটর ডেম কলেজ থেকে বিএ পাস করেন। ১৯৬৮ সালে ময়মনসিংহ টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে বিএড এবং ময়মনসিংহ ‘ল’ কলেজ থেকে ১৯৮২ সালে এলএলবি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি ময়মনসিংহ জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ছিলেন।

ছাত্র ও কর্মজীবনের শুরু থেকেই প্রমোদ মানকিন রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন।১৯৯১ সালে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগ দেন। সংগঠক হিসেবে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি।

প্রমোদ মানকিন ১৯৯১, ২০০১, ২০০৮ ও ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন।

অপরদিকে ময়মনসিংয়ের অন্যতম প্রভাবশালী রাজনীতিক সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মজিবুর রহমান ফকির গত ২ মে ইন্তেকাল করেন। তিনি ১৯৪৫ সালের ৭ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. মজিবুর রহমান ফকিরের মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।

২০০৯-২০১৪ মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকারের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন মজিবুর রহমান ফকির পেশায় একজন চিকিৎসক ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই