মেইন ম্যেনু

দাউদকান্দিতে ডাকাত-পুলিশের গুলি ॥ পুলিশসহ আহত ৪

দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর-মতলব সড়কের নোয়াগাঁও-এ ডাকাত-পুলিশের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে এবং এতে পুলিশসহ আহত হয়েছে ৪ জন।
জানা যায়, ১১ মার্চ শুক্রবার রাতে ঢাকা-গৌরীপুর-মতলব সড়কের উপজেলার নোয়াগাঁও-এলাকায় একদল মুখোশধারী ডাকাত অস্ত্রশস্ত্রসহ প্রথমে রাস্তায় গাছ ফেলে ব্যারিকেট দেয়। পরে ঢাকা থেকে প্রবাসী যাত্রীসহ আসা ২টি মাইক্রোবাস, ২টি প্রাইভেটকার ও ৩টি পিকআপ থামিয়ে চালকদেরকে অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে যাত্রীদের সাথে থাকা নগদ টাকা,স্বর্ণালঙ্কার, মোবাইল সেটসহ প্রায় ৮ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় চালক ও যাত্রীরা চিৎকার করলে ডাকাতেরা তাদেরকে রামদা দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় টহল পুলিশের গাড়িতেও হামলা করে। ফলে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি চালালে ডাকাত ও পুলিশসহ ৪ জন আহত হয়।
প্রাইভেটকারের যাত্রী উপজেলার ওজারখোলার মিজানুর রহমান জানান, ‘ডাকাতরা অস্ত্র ঠেকিয়ে আমার স্ত্রীর সাড়ে তিন ভরি স্বর্ণ ও আমার নিকট থাকা ৩০ হাজার টাকা নিয়ে যায় এবং চালক আলমগীর হোসেনকে রামদা দিয়ে আঘাত করে। এসময় টহল পুলিশ এগিয়ে এলে ডাকাত-পুলিশের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। এতে পুলিশও আহত হয় এবং এক ডাকাত গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক হয়’।
এ ব্যাপারে দাউদকান্দি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া বলেন,‘ ডাকাতির সময় পুলিশ ও গাড়ির যাত্রীসহ ৪ জন আহত হয়েছে। মুখোশধারী ডাকাতদল যাত্রীদের নিকট থেকে প্রায় ৮ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে। গুলিবিদ্ধ ডাকাত আবুল কালাম (২৮) দাউদকান্দি উপজেলার তিনচিটা গ্রামের মোস্তাক মিয়ার ছেলে। সে ঢামেক-এ চিকিৎসাধীন রয়েছে। ডাকাতি হওয়া মালামাল উদ্ধাররের চেষ্টা চলছে’। আটককৃত ডাকাত আবু কালামের বিরুদ্ধে হত্যা ও ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে তিনি জানান।






মন্তব্য চালু নেই