মেইন ম্যেনু

দাউদকান্দির গৌরীপুরে জিয়ারকান্দি আ’লীগ সভাপতির ওপর হামলা ও অটোরিক্সা ভাংচুর

মা.আলী আশরাফ খান, দাউদকান্দি, কুমিল্লা : আজ ২৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে দাউদকান্দির গৌরীপুরে চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করতে গিয়ে তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আজম খাঁন স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় হামলাকারীরা প্রায় ১০/১৫টি সিএনজি ভাংচুর করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আজম খাঁন বলেন, ‘আমি গৌরীপুর বাজারের একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। আজ দুপুরে বাজারের ভিতর দিয়ে রিক্সা নিয়ে যাওয়ার সময় সিএনজি থেকে চাঁদা আদায়কারী কয়েকজন চাঁদাবাজ আমার গতিরোধ করে এবং আমার রিক্সার চালককে মারধর করে। আমি এর প্রতিবাদ করায় চাঁদাবাজ আলমের নেতৃত্বে তারা আমার ওপর নগ্ন হামলা চালায় এবং আলম কোমর হতে পিস্তল বের করে আমাকে গুলি করার জন্য তৈরি হয়। এ সময় উপস্থিত পথচারিরা এগিয়ে এলে আলমসহ অন্যরা পালিয়ে যায়’। তিনি আরো বলেন, ‘গৌরীপুর বাজারের এই চিহ্নিত চাদাঁবাজ আলমের বিরুদ্ধে দাউদকান্দি ও তিতাস থানায় ১০/১২টি মামলা রয়েছে’।

পথচারি ও অপরাপর সূত্র হতে জানা যায়, দুপুরে আজম খান রিক্সা করে গৌরীপুর বাসস্ট্যান্ড হতে বাজারে আসার পথে সিএনজি থেকে চাঁদা আদায়কারী লাইনম্যানরা তার রিক্সাটি গতিরোধ করে। আজম খাঁন গতিরোধ করার কারণ জানতে চাইলে, তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে। তৎক্ষণাৎ আত্মরক্ষার্থে তিনি দৌঁড়ে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ভিতরে গিয়ে আশ্রয় নেন। এসময় পুলিশ হামলাকারীদের ফাঁড়ির ভিতর ঢুকতে না দেয়ায় তারা রাস্তায় এসে প্রায় ডজনখানেক অটোরিক্সা (সিএনজি) ভাংচুর এবং চালকদের বেধম প্রহার করে।

এ ব্যাপারে গৌরীপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ তপন বাকচি বলেন, ‘এ ঘটনায় এখনো কোন লিখিত অভিযোগ কেউ দায়ের করেননি’। অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।






মন্তব্য চালু নেই