মেইন ম্যেনু

দাদা জওয়ান, নাতি জঙ্গি!

মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস -এর সঙ্গে যোগাযোগ থাকার অভিযোগে গত ফেব্রুয়ারি মাসে মধ্যপ্রদেশের ভূপাল থেকে আজহার ইকবাল নামে ২৪ বছর বয়সী এক যুবককে গ্রেফাতার করেছে ভারতীয় জাতীয় তদন্ত সংস্থা-এনআইএ।

আইএস -এর সঙ্গে ‘যোগাযোগ রক্ষাকারী’দের খুঁজতে ভারতজুড়ে এনআইএ’র চালানো অভিযানে গ্রেফতার হন তিনি।

সংস্থাটির দাবি, উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র এবং অন্ধ্রপ্রদেশে আইএস-এর একাধিক বৈঠকে অংশগ্রহণ করেছিল আজহার। গত বছরের এপ্রিল মাসে আইএস-এর সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়েছিল বলেও স্বীকার করেছেন তিনি।

কিন্তু এই আজহারের পরিবার সম্পর্কে খোঁজ নিতে গিয়ে এনআইএ তদন্তকারীরা যে তথ্য পেয়েছেন, তা চমকে দেয়ার মতো। আইএস-এর সঙ্গে সক্রিয়ভাবে যুক্ত থাকা আজহারের দাদা মেহমুদাল হাসান ভারতীয় সেনাবাহিনীর একজন সদস্য ছিলেন। চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পরে সরকার থেকে ৬০ একর জমিও পেয়েছিলেন তিনি। সেই জমি এখনও আজহারের পরিবারের কাছেই রয়েছে।

তদন্তকারীরা আরও জানতে পেরেছেন, আজহারের পরিবারও কখনও কারও সঙ্গে কোনো রকম বিবাদে জড়ায়নি। কিন্তু ওই পরিবারেরই সদস্য আজাহার একজন আইএস জঙ্গি।

এনআইএ জানান, গত বছর এপ্রিল মাসে আইএস-এর সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়েছিল বলে জেরা স্বীকার করেছে আজহার। এছাড়া উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র এবং অন্ধ্রপ্রদেশে আইএস-এর একাধিক বৈঠকে অংশগ্রহণ করেছিলেন তিনি।

ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত স্থানীয় একটি স্কুল পড়াশোনার পরে মাদ্রাসায় ভর্তি হয় আজহার। এরপর থেকে অধিকাংশ সময়েই গ্রামের বাইরে থাকতেন তিনি। নিজের গ্রামেও খুব কম আসতেন।

গ্রেফতারের পরে আজহারকে ভূপালে এনআইএ-র বিশেষ আদালতে তোলা হয়।

সূত্র: এবেলা






মন্তব্য চালু নেই