মেইন ম্যেনু

দিদিকে নিজেই পৌঁছে দিলেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী

‘আমাদের কাছে দিদি এসেছেন’ ভুটানের প্রধানমন্ত্রীর মুখে এ কথাতেই বোঝা যায়, তিনি কতটা সমাদর করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং টোবগে বেশ বিরল ঘটনারই জন্ম দিয়েছেন। এ নিয়ে ওপার বাংলাসহ সারা ভারতেই বেশ শোর পড়েছে ঘটনায়।

পশ্চিমবঙ্গের গণমাধ্যমগুলো বলছে, সম্ভবত এই প্রথম স্বয়ং কোনো প্রধানমন্ত্রী তারই দেওয়া ভোজসভা থেকে নিজে গাড়ি চালিয়ে কোনও রাজ্যের মুখ‍্যমন্ত্রীকে পৌঁছে দিলেন হোটেলে। এদেশের প্রধানমন্ত্রী যে পশ্চিমবঙ্গের মুখ‍্যমন্ত্রীর নীতি, আদর্শকে সম্মান করেন তাও তুলে ধরেছে গণমাধ্যমগুলো। এসময় তাদের একান্ত আলাপচারিতাও তুলে ধরেছে পত্রিকাগুলো।

মুখ‍্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছিলেন, ‘আপনি কতদিন রাজনীতি করছেন। আপনার গোটা শহরটা চেনেন?’ প্রধানমন্ত্রীরও সরল উত্তর, ‘আমি সাইকেলে চেপে ঘুরেছি। সব চিনি। ৫ বছর বিরোধী দলে ছিলাম। একটা সময় আমার দলে আমি আর আমার এখনকার বিদেশমন্ত্রী ছাড়া কেউ ছিল না।’

মুখ‍্যমন্ত্রী উত্তরে তাকে জানিয়েছেন, আমিও লড়াই করে উঠে এসেছি। ২০০৪ সালে একা হয়ে গিয়েছিলাম।’

চার দিনের সরকারি সফরে ভুটান গিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। হয়েছে বৈঠকও। নিরাপত্তা–সহ পর্যটন, বন্যারোধ নিয়ে বিশেষজ্ঞ কমিটি গড়ার প্রস্তাব এসেছে এই বৈঠকে। বৈঠকের আগে মুখ্যমন্ত্রীর সম্মানে ছিল ভোজসভা। ভুটানের চতুর্থ রাজা জিগমে সিংমে ওয়াংচুর ভেনচেনচোলিং প্রাসাদে যান মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে দু’দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি, বাংলা ও ভুটানের সীমানা, পর্যটন নিয়ে আলোচনা হয়। শুক্রবার তার কলকাতায় ফেরার কথা রয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার






মন্তব্য চালু নেই