মেইন ম্যেনু

দিনভর যানজটে নাকাল ঢাকাবাসী

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বিভিন্ন কর্মসূচির কারণে বুধবার সকাল থেকেই রাজধানীজুড়ে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় হাজার হাজার যাত্রীকে। কেউ কেউ গাড়ি থেকে নেমে হেঁটেই গেছেন নির্দিষ্ট গন্তব্যে। আবার অনেকেই যানজটের মধ্যেই গাড়িতে বসেই প্রহর গুণছিলেন কখন পৌঁছাবেন কাঙ্ক্ষিত জায়গায়। কেউ কেউ বিরক্তি প্রকাশ করেন গাড়িতে ভ্রাম্যমাণ হকারের যন্ত্রণায়।

মামুনুর রশীদ (৪১) তিনি এয়ারপোর্ট থেকে সকাল ৯টায় রওনা দিয়ে সাড়ে ৪ ঘণ্টায় গুলিস্তান পৌঁছান। তার জরুরি কাজেই ঢাকা আসা কিন্তু সময়মতো পৌঁছতে না পারায় বিরক্তির সঙ্গে বলেন, ‘এক ঘণ্টার রাস্তা আসতে যদি ৫ ঘণ্টা সময় লাগে তাহলে মানুষ তার দৈনন্দিন কাজ কর্ম কীভাবে সম্পন্ন করবে। বনানী ফ্লাইওভার থেকে মহাখালী পর্যন্ত আসতেই আড়াই ঘণ্টা সময় লেগেছে। যেখানে ৫ মিনিটে যাওয়া যায়।’

উর্মিলা নামে এক যাত্রী আমিন বাজার থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসেন তার নিকট আত্মীয় এক রোগীকে দেখতে। তিনি যানজট প্রসঙ্গে বলেন, ‘এটা আমাদের নাগরিক অধিকারের মধ্যেই মনে হচ্ছে। সুস্থ জীবন যাপন করা যেমন আমাদের নাগরিক অধিকার তেমনি যানজট আমাদের জন্মগত পাওনা বলেই মনে হচ্ছে। যানজট নিরসনে কেউ নেই।’

যানজটে অতিষ্ঠ হয়ে বনানী মোড় থেকে হেঁটে মগবাজারের দিকে রওনা দেওয়া সাইফুল নামে এক যাত্রী বলেন, ‘ভাই ২ ঘণ্টা গাড়িতে বসে ছিলাম। একদিকে তীব্র যানজটে বিরক্ত মানুষ তারপর গাড়িতে একটু পরপর নানা রকমের হকারের যন্ত্রণায় বসে থাকতে পারলাম না। তাই হেঁটেই চললাম। কিছুই করার নাই।’

ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচির কারণে যানজটে সৃষ্টি হয়েছে বলে অনেকের অভিযোগ। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে শাহবাগ, মৎস্যভবন, কাকরাইল ও বিজয়নগর হয়ে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পর্যন্ত র‌্যালি বের হয়। র‌্যালির কারণে ওইসব এলাকার সড়কে যানবাহন আটকা পড়ে। সড়কে যানবাহন স্থবির হয়ে আছে। যে কারণে সাধারণ মানুষকে প্রচণ্ড দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। এ ছাড়া ধানমণ্ডি থেকে সাইন্সল্যাব মোড়, শাহবাগ, গুলিস্তান, মগবাজার, জাহাঙ্গীর গেট থেকে কারওরান বাজারের প্রতিটি জায়গায় অসংখ্য গাড়ির যানজট দেখা গেছে।

যানজট প্রসঙ্গে জানার জন্য ঢাকা মহানগর ট্রাফিকের (দক্ষিণ) উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) রিফাত রহমান শামীমের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এদিকে যানজট নিয়ে আজ কোনো মন্তব্য না করলেও গতকাল (মঙ্গলবার) ঢাকা মহানগরের সর্বসাধারণের কাছে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচির কারণে সাময়িক অসুবিধার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ।

সকাল সাড়ে ৬টায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে শুরু হয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আনুষ্ঠানিকতা। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলে কেক কাটেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি পূর্ব পাকিস্তান মুসলীম ছাত্রলীগ নামে সংগঠনটির যাত্রা শুরু হয়। এবার ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ৪ দিনের কর্মসূচি পালন করছে ছাত্রলীগ।






মন্তব্য চালু নেই