মেইন ম্যেনু

দিনমজুর থেকে ফিল্মের হিরো তিনি!

সিনেমার মতোই প্রভাকর শরণের জীবন। তিনি এখন ফিল্মের হিরো। তাও আবার কোস্টা রিকার ফিল্মে! এমন ভাগ্যপরিবর্তন বোধহয় স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি ভারতের বিহারের হতদরিদ্র পরিবারের সন্তান প্রভাকর। প্রভাকরের ফিল্মের নাম ‘‌এনট্যাঙ্গলড, দ্য কনফিউশন’‌। ফিল্মে প্রভাকরের বিপরীতে রয়েছেন কোস্টা রিকার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ন্যান্সি ডাবলস। চমকে দেওয়ার মতো বিষয় হল বলিউডের স্টাইলে তৈরি এই ফিল্মে ভারতীয় নয়, কোস্টা রিকারই এক যুবকের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। ‘‌খিলাড়ি ৭৮৬’‌এর পরিচালক আশিস মোহনই পরিচালনা করছেন ছবিটি। প্রযোজক তেরেসা রদরিগেজ। ৯ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাবে ছবিটি।

স্প্যানিশ ভাষার ছবিটি প্রকাশ পাবে হিন্দি ও ইংরাজি ভাষাতে। কিন্তু কী করে সম্ভব হল এই অসম্ভব?‌ মাটি কাটার দিনমজুর থেকে ফিল্মের হিরো হওয়ার জন্য বিস্তর কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে প্রভাকরকে। বিহারের জন্মের পর হরিয়ানায় কাজের খোঁজে চলে আসেন প্রভাকরের বাবা। চরম দারিদ্রে দিন কেটেছে তাদের। অতিকষ্টে টাকা পয়সা জোগার করে পড়াশুনো চালান প্রভাকর। কোন মতে পয়সা জোগার করে আমেরিকা যাওয়ার চেষ্টা করেন প্রভাকর। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোস্টা রিকায় গিয়ে কাপড়ের ব্যবসা করাই মনস্থ করেন। কোস্টা রিকায় এসে স্থানীয় এক তরুণীকে বিয়ে করেছিলেন তিনি। একটি কন্যা সন্তানও হয়। তবে সেই বিয়ে দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। ব্যবসাতেও বিরাট বিবাহ বিচ্ছেদের পরে ভারতে ফিরে আসেন প্রভাকর। কিন্তু কয়েকদিন পরে ফিরে যান কোস্টা রিকায়। ভারতে থাকার সময় অভিনয়ের চেষ্টা করেছিলেন মনোজ। কিন্তু বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি। কোস্টা রিকায় ফিরে ফের অভিনয়ের চেষ্টা করতেই সুযোগ পেয়ে যান। বলিউডের ফিল্ম কোস্টা রিকায় যথেষ্ট জনপ্রিয়। নিজের দেশের ফিল্মের জনপ্রিয়তাকে ছাপিয়ে নিজেকে অভিনয়ের জগতে প্রতিষ্ঠা করাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ প্রভাকরের সামনে। সূত্র: আজকাল।






মন্তব্য চালু নেই