মেইন ম্যেনু

দিনাজপুরের রিয়াদ হত্যা মামলায় ৪জন আটক: হত্যাকান্ডের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস !

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে চাঞ্চল্যকর রিয়াদ হত্যা মামলায় ৪জনকে আটক করেছে পুলিশ। রিয়াদকে নৃশংসভাবে গলা কেটে হত্যার চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস হয়ে গেছে। প্রেম ঘটিত কারণেই রিয়াদ হত্যার শিকার হয়েছে বলে পুলিশ ক্লু খুঁজে পেয়েছে।

এ ঘটনার পর রিয়াদের কথিত প্রেমিকা ও তার পরিবার গা ঢাকা দিয়েছে। পুলিশ খুঁজছে তাদের। রিয়াদের বাড়িতে মিলেছে কথিত সেই প্রেমিকার অসংখ্য চিঠি। যা পুলিশের কাছে জমা দেয়া হয়েছে বলে রিয়াদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে। তবে রিয়াদের হত্যাকারী কে – প্রেমিকার পরিবাররের লোকজন না কথিত প্রেমিকার আরেক প্রেমিকজন ? এনিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

বনগাঁ দ্বি-মুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী অপূর্ব সুন্দরী কিশোরী কথিত প্রেমিকার বনগাঁ চাইপাড়া গ্রামের এক কৃষকের মেয়ে। বনগাঁ দ্বি-মুখি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পাশ করেছিলো রিয়াদ। দিনাজপুর পলি টেকনিক কলেজে ভর্তি হওয়ার কথা ছিলো রিয়াদের। তার আগেই ৭ জুন রাতে রিয়াদ নৃশংস হত্যাকান্ডের শিকার হয়। গলা কেটে তাকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

একটি মরিচ ক্ষেত থেকে বুধবার সকালে রফিকুল ইসলাম রিয়াদ (১৭) গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। রফিকুল ইসলাম রিয়াদ উপজেলার রনগাঁও ইউনিয়নের হাজীপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল বাকির ছেলে।
রিয়াদের পরিবারের লোকজন জানায়,মঙ্গলবার রাতে তাড়াবি নামাজ শেষে মসজিদে ঘুমানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় রিয়াদ। এর আগে এক বন্ধু তাকে বার বার মোবাইল ফোনে কল করে বাইরে বেরুবার জন্য ডাকে। বুধবার সকালে রিয়াদের গলা কাটা লাশ বাড়ির পার্শবর্তী মরিচ ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পরিবারকে সংবাদ দেয়। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

বোচাগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুল হক প্রধান জানায়, প্রেম ঘটিত বিষয়কে কেন্দ্র করে বন্ধুদের হাতে রিয়াদ এই হত্যাকান্ডের শিকার। হত্যাকান্ডের প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করার জন্য ইতোমধ্যে ৪ জনকে বৃহস্পতিবার রাতে আটক করেছে পুলিশ। আটকৃতরা হলেন রনগাঁও গ্রামের মোঃ দুলাল হোসেন এর ছেলে মোঃ সোহাগ হোসেন (১৯), একই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে মোঃ সায়েম ওরফে সাজ্জাদ (১৫), বাবুল কুমার যোসেফের ছেলে মোহন কুমার যোসেফ (২২) ও মোঃ দুলাল হোসেনের ছেলে সোহাগ হোসেন (১৯)।

এ ঘটনায় রিয়াদের পিতা আব্দুল বাকির বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। এ ঘটনার পর রিয়াদের কথিত প্রেমিকা ও তার পরিবারের লোকজন গা ঢাকা দিয়েছে। পুলিশ তাদের খুঁজছে। এ হত্যাকান্ডে সম্পৃক্ততায় কথিত প্রেমিকার এক সাবেক ইউপি সদস্য চাচা’র প্রতিও রয়েছে পুলিশী নজর। ওই চাচা একজন ভংকর মানুষ বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে রিয়াদ খুন হওয়ার খবর প্রকাশিত হবার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিন্দার ঝড় উঠেছে। এই নৃশংস হত্যার বিচারের দাবী জানানো হয়েছে। রিয়াদের ফেসবুকে সর্বশেষ পোষ্টটি ছিল “পৃথিরীর সকল মুসলিম ভাই বোনের,সবার প্রতি রমজানের শুভেচ্ছা রইল,যতটুকু সম্ভব সবাই রোজা রাখার চেষ্টা করবেন।আমার জন্য দোয়া করবেন যের আল্লাহ রোজা রাখার তোফিকদান করেন।”






মন্তব্য চালু নেই