মেইন ম্যেনু

দীর্ঘ ৪৪বছরেও পাকা হয়নি ঝিনাইগাতীর বাকাকুড়া-বিঞ্চপুর সড়ক

মুহাম্মদ আবু হেলাল, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) : দীর্ঘ ৪৪ বছরেও পাকা হয়নি শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার বাকাকুড়া-বিঞ্চপুর সড়কটি। ফলে এ রাস্তায় যাতায়াতকারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের বাকাকুড়া বাজার থেকে পানবর, কাংশা, আয়নাপুর, নাচনমহুরী, টুনাপাড়া হয়ে চরণতলা বিঞ্চপুর বাজার পর্যন্ত এলজিইডি’র প্রায় ১০কিঃমিঃ কাচা রাস্তা। তন্মধ্যে ১কিঃমিঃ রাস্তা পাকা করা হয়েছে। বাকী ৯কিঃমিঃ রাস্তা কাচা এবং সরু এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কাংশা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রী ও কৃষক সহ শতশত গ্রামবাসী যাথায়ত করে থাকেন। কিন্তু রাস্তাটি দীর্ঘ ৪৪বছরেও পাকাকরণ করা হয়নি। রাস্তাটি পাকাকরণ করার অভাবে বর্ষা মৌসুমে কাদায় ভরপুর থাকায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। রিক্সা, ভ্যান গাড়ীতো দূরের কথা পায়ে হেটে যাতায়ত করারও দুঃস্কর হয়ে পড়ে। কৃষকরা গবাদীপশু সহ তাদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য আনা নেওয়ার ক্ষেত্রে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়। বিদ্যালয়গামী কোমলমতি শিশু কিশোররা বিদ্যালয় বিমূখ হয়ে পড়ে। গ্রামবাসীরা জানায়, দেশ স্বাধীনের পর বিভিন্ন সময় এ রাস্তাটি পাকাকরণের দাবী জানানো হয়েছে বহুবার। জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্বাসও পাওয়া যায়। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, নির্বাচনের সময় এ রাস্তাটি পাকাকরণের আশ্বাস দিয়ে শুধু তাদের কাছে ভোট নেওয়া হয়। কিন্তু নির্বাচনের পর কেউ আর তাদের খোঁজ-খবর নেয় না। বর্তমানে এ রাস্তাটি কাংশা ইউনিয়নবাসীর চরম কষ্টের কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। গ্রামবাসীরা এ রাস্তাটি পাকাকরণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ ফরিদুল ইসলাম বলেন,“সড়কটি পাকাকরণের ব্যাপারে তাদের পরিকল্পনা রয়েছে। অর্থ বরাদ্দ পাওয়া গেলে সড়কটি পাকাকরণ করা হবে”।






মন্তব্য চালু নেই