মেইন ম্যেনু

দুই হাত ছাড়াই ছবি একেঁ সংসার চালায় শিশু রাসেল

ডান হাতের কনুইয়ের নিচ থেকে নেই। আর বাঁ হাত কাটা কনুইয়ের ওপর থেকে। কাটা দুই হাতে ছবি এঁকে জীবনযুদ্ধের লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে শিশু রাসেল (১৭)। পথচারীরা মায়া করে দু-চার টাকা দিয়ে সাহায্য করেন। মূলত তা দিয়েই চলে তার বাবা-মায়ের অভাবের সংসার।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুর সরকারি কলেজের সামনে দেখা হয় শিশু রাসেলের সঙ্গে। সে জানায়, তাদের গ্রামের বাড়ি বরিশাল। তার ছয় বছর বয়সে বাবা-মা কাজের সন্ধানে ঢাকায় চলে আসেন। তাকে ভর্তি করিয়ে দেন প্রথম শ্রেণিতে মালিবাগের একটি স্কুলে। বাবা-মা মালিবাগেই দিনমজুরের কাজ নেন। একদিন কমলাপুর রেলস্টেশনে খেলতে গিয়ে ট্রেনের নিচে তার দুটি হাত ও ডান পায়ের কিছু অংশ কাটা পড়ে। তখন থেকেই শুরু তার জীবনযুদ্ধ।

রাসেলের বয়স এখন ১৭। চার ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তৃতীয়। মালিবাগের একটি বস্তিতে থাকে তার পরিবার। অসুস্থতার কারণে বাবা-মা দুজনেই এখন অচল। তাই বড় দুই ভাইও দিনমজুরের কাজ করে সংসারের কিছুটা হাল ধরেছেন। তারপরও সংসারের অভাব যায় না। অসহায় বাবা-মাকে আরও সাহায্য করতে হবে। তাই তিন বছর আগে সবাইকে ছেড়ে চাঁদপুর শহরের পুরানবাজারে খালার বাসায় চলে আসে রাসেল।

রাসেলের কথায়, সে পরিবারের বোঝা হয়ে থাকতে চায় না। তাই প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এ শহরের রাস্তায় বসে ছবি আঁকে। তা দেখে কেউ কেউ টাকাপয়সা দিয়ে সহায়তা করে।

উপার্জিত টাকার অধিকাংশ ঢাকায় বাবা-মাকে পাঠিয়ে দেয়। তার পাঠানো অর্থে চার ভাইবোনের লেখাপড়ার খরচও চলে। কিন্তু নিজের ভবিষ্যৎ কী হবে, তা আর জানে না রাসেল।






মন্তব্য চালু নেই