মেইন ম্যেনু

দু’জন ব্যবসায়ীর অকাল মৃত্যূতে মর্মহত ঝাউডাঙ্গা বাজারের ব্যবসায়ীগণ

ঝাউডাঙ্গা বাজারের দুজন স্বনামধণ্য ব্যবসায়ীকে হারিয়ে মর্মহত হয়ে পড়েছেন বাজারের সর্বস্তরের ব্যবসায়ীগণ। বাজারের দীর্ঘদিনের দর্জি ব্যবসায়ী তৌহিদুল ইসলাম ও বিশিষ্ট মুদি ব্যবসায়ী নূর ইসলাম সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

তৌহিদুল ইসলাম গত সোমবার যশোর সাতক্ষীরা সড়কের ওয়ারিয়া জামে মসজিদ নিকটে এক সড়ক দূর্ঘটনায় মারতœকভাবে আহত হন । প্রথমে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কর্তব্যরত ডাক্তার তার অবস্থা দেখে খুলনা ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

দ্রুত খুলনা ২৫০ শষ্যা বেড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ডাক্তারগণ তার অবস্থা দেখে সেখানে ভর্তি নিতে অপরগতা প্রকাশ করেন। কোন উপায় না পেয়ে রোগীর লোকজন খুলনা গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ঐ সময় তার অবস্থা দ্রুত অবনতি হতে থাকলে ডক্তারগণ রোগীকে আই সি ইউ তে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। তাকে ঐ সময় আই সি ইউতে নিয়ে লাইফ সার্পোট দিয়ে কৃত্রিমভাবে বাাঁচিয়ে রাখা হয়। দীর্ঘ ২৪ ঘন্টা মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে গত বুধবার বিকালে চলে যান না ফেরার দেশে।

পারিবারিক একটি সূত্র জানিয়েছে, ঝাউডাঙ্গা বিজিপি এর বিশেষ ক্যাম্প এর দ্রুত গতিতে ছুটে একটি মটর সাইকেলে সামনাসামনি ধাক্কা লেগে তিনি দূর্ঘটনায় পতিত হন। তৌহিদুল ইসলাম সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যূৎ সমিতির কলারোয়া এলাকার সাবেক অঞ্চল পরিচালক ছিলেন।

বৃহস্পতিবার তৌহিদুল ইসলামের জানাযার নামাজ গোপীনাথপুর গ্রামে তার নিজস্ব বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে কলারোয়া উপজেলা ভাইচ চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু,সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যূৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার রবীন্দ্রনাথ দাস,ঝাউডাঙ্গা জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার রেজাউল ইসলাম খান, সমিতির সভাপতি ওজিয়ার রহমান,সকল এরিয়া পরিচালক ও পল্লী বিদ্যূৎ সমিতি অফিসের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এবং বি এ ডি সি এর সাবেক উপজেলা কর্মকর্তা রাফিউল ইসলাম, সাবেক ডেপুটি পোষ্ট মাষ্টার জেনালে সিরাজুল ইসলাম,আগড়দাড়ি মাদ্রাসার প্রিন্সিপ্যাল মুহাদ্দিস কাশেমী,আমতলা আলীম মাদ্রাসার প্রিন্সিপ্যাল মুহসাতিম বিল্লাহ আযাদ, ঝাউডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান আজমল উদ্দীন সহ হাজারো গুনগ্রাহী ও আতœীয় স্বজন উপস্থিত ছিলেন।

তৌহিদুল ইসলাম এক পুত্র ও দুই কন্যার জনক এবং পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষ ব্যক্তি ছিলেন।

অপর দিকে গত কাল বুধবার সকাল ১০ টার দিকে ঝাউডাঙ্গা বাজারের বিশিষ্ট মুদি ব্যবসায়ী নূর ইসলাম হৃদ যন্ত্রের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে ঝাউডাঙ্গাস্থ নিজস্ব বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। (ইন্নাল্লহি ……. অইন্না লিল্লাহির রাজিউন) মৃত্যূকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। তিনি এক ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের পিতা ছিলেন।

হঠাৎ করে ঝাউডাঙ্গা বাজারের দু’জন ব্যবসায়ীর মৃত্যূতে বেলা দু’টা থেকে ৫টা পর্যন্ত সকল ব্যবসায়ীগণ তাদের দোকান পাট বন্ধ রেখে শোখ সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। তাদের দ’জনকে বৃহস্পতিবার দাফন কাফন করা হয়েছে। এ ঘটনার ফলে ঝাউডাঙ্গা বাজারে শোখের ছায়া নেমে এসেছে।






মন্তব্য চালু নেই