মেইন ম্যেনু

দুদকের নতুন চেয়ারম্যান: সকালে নিয়োগ, বিকালে যোগদান

সকালে নিয়োগ পেয়ে বিকালেই যোগদান করলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) নতুন চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে চারটার দিকে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে তিনি যোগদানপত্র জমা দেন।

এর আগে সকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে ইকবাল মাহমুদকে দুদকের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। একইসঙ্গে সংস্থাটির কমিশনার পদে নিয়োগ পেয়েছেন সাবেক জেলা জজ এ এফ এম আমিনুল ইসলাম।তবে তিনি এখনো যোগদানপত্র জমা দেননি বলে সূত্রে জানা গেছে।

ইকবাল মাহমুদ বিসিএস ১৯৮১ ব্যাচের কর্মকর্তা। তিনি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক সিনিয়র সচিব ছিলেন। তিনি দুদকের সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামানের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন।

অন্যদিকে বিদায়ী কমিশনার মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পুর স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন আমিনুল ইসলাম। আগামী ১৩ মার্চ বর্তমান চেয়ারম্যান বদিউজ্জামান ও কমিশনার মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পুর চাকরির মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) বিকল্প নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন শেষে অবসরোত্তর ছুটিতে থাকাকালীন অবস্থায় গত বছরের আগস্টে ইকবাল মাহমুদকে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয় সরকার। এক মাস পর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে বিটিআরসির চেয়ারম্যান করা হয় প্রকৌশলী শাহজাহান মাহমুদকে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব থাকা অবস্থায় ২০০৮ সালের জুন মাসে পদোন্নতি পেয়ে সচিব হন ইকবাল মাহমুদ। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর তাকে সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের (বর্তমান জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়) সচিব করা হয়। এরপর ২০১২ সালে সরকার ‘সিনিয়র সচিব’ নামে নতুন পদ সৃষ্টি করলে আরও সাতজনের সঙ্গে ইকবাল মাহমুদও ওই পদ পান। তখন তিনি অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের দায়িত্বে ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই