মেইন ম্যেনু

‘দু’দেশের জন্য মঙ্গলজনক সিদ্ধান্ত নেবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া’

নিরাপত্তা ইস্যুতে এরই মধ্যে পুরোপুরি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর। চলতি বছরই পাকিস্তন, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো বড় তিনটি দল খেলে গেছে বাংলাদেশে। কোনো দলের সফরের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠেনি। অথচ, অস্ট্রেলিয়া নিরাপত্তা ইস্যু সামনে এনে সফর বাতিল করতে যাচ্ছে। বুধবার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের ক্রিকেটারদের নিজ নিজ রাজ্য দলে যোগদানের নির্দেশ দেয়ার পর বিষয়টা আরও স্পষ্ট হয়ে গেছে। তবুও, আনুষ্ঠানিক কোন ঘোষণা না আসা পর্যন্ত আশায় বুক বাধছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

স্টিভেন স্মিথদের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ করতে বাংলাদেশে আসা নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ শন ক্যারলকে সরকারের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আশ্বাস দেয়া হয়েছে। এমনকি বলা হয়েছে, তারা যেভাবে চাইবে সেভাবে নিরাপত্তা দেয়া হবে। এ কারণে এখনও আশাবাদী বিসিবি। সব শঙ্কা দূর করে সিরিজ খেলতে খুব শিগগিরই টিম অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ সফর করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন।

অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞের সঙ্গে বাংলাদেশের বিভিন্ন নিরাপত্তা সংস্থার বৈঠকের পর সফর নিয়ে শঙ্কা কেটে যাওয়ার ইঙ্গিত মিলেছিল। কিন্তু নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ শন ক্যারলসহ অস্ট্রেলিয়ার টিম ম্যানেজার কেভিন ডোভি এবং নিরাপত্তা ম্যানেজার ফ্রাঙ্ক ডিমাসিকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া হঠাৎ করেই ডেকে পাঠানোয় নতুন করে শঙ্কা দেখা দেয়। সেই সঙ্গে যোগ হয়েছিল কূটনৈতিক পাড়ায় ইতালীয় নাগরিকের হত্যাকান্ডের ঘটনাটি।

বুধবার বিকালে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদিন চৌধুরী সুজন। আসন্ন সিরিজ নিয়ে উদ্ভুত সমস্যা সমাধানে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার দুই দেশের ক্রিকেটের জন্যই মঙ্গলজনক সিদ্ধান্ত নেবেন বলে মনে করেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী।

অস্ট্রেলিয়ার সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এখন যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, তা নিয়ে কিছুটা অস্বস্তি রয়েছে। একই সাথে আমরা মনে করি, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেবে যা দুই বোর্ডের জন্যই ভালো হবে। আপনারা জানেন, তাদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কটা ঐতিহাসিক। যার একটা উদাহরণ দেখা গেছে গত বিশ্বকাপে। বিশ্বকাপ শুরুর আগে আমরা অস্ট্রেলিয়াতে গিয়েছি। সেখানে অনুশীলনের সুবিধা তারা আমাদের দিয়েছে। যার ফলে আমাদের পারফরম্যান্সও বেশ ভালো হয়েছে। সব দিক মিলিয়ে আমরা মনে করি, তারা যে সিদ্ধান্ত নিবে তা দুই বোর্ডের জন্যই ভালো হবে।’

অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের এই সফর নিয়ে সংশয়টা আরো বেড়েছে অসি ক্রিকেটারদের রাজ্য দলে যোগ দেয়ার সংবাদে। এ প্রসঙ্গে নিজাম উদ্দেন চৌধুরী বলেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ক্যাম্প থেকে ক্রিকেটারদের ফেরত পাঠিয়েছে, এটা মিডিয়া থেকে আমরা জেনেছি। এ বিষয়ে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা কিছু জানি না। তাদের হয়তো অন্য কোনো পরিকল্পনা আছে। তারা সেটা নিয়ে কাজ করছে। যদিও ওরা তাদের খেলোয়াড়দের ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার জন্য পাঠিয়ে দিয়েছে, এটা আপনাদের কাছে নেতিবাচক ব্যাপার মনে হতে পারে; একই সাথে ওরা যে কিছু জানাচ্ছে না, এটা আবার ইতিবাচক।’

নিরাপত্তা দলের প্রতিবেদন স্বাপেক্ষে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) দু-একদিনের মধ্যেই বাংলাদেশ সফরের বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেবে বলেই আশা করছেন বিসিবি’র প্রধান নির্বাহী।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আপনার যা জানেন, পুরো অবস্থা সে রকমই আছে। অস্ট্রেলিয়ার যে পরিদর্শক দল এখানে এসেছিলো, তারা দেশে ফিরে গিয়ে তাদের বোর্ডের কাছে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। আমাদের কাছে যতোটুকু তথ্য আছে তা হলো, আগামী দুই একদিনের মধ্যেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে।’

অস্ট্রেলিয়া সিরিজের জন্য সব প্রস্ততিই শেষ করে রেখেছে বিসিবি। তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তাজনিত ঝুঁকির কারণ দেখানোয় এখন অনিশ্চয়তায় বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজ। সিরিজটি বাতিল হয়ে যেতে পারে, এমন শঙ্কা করে কয়েকটি আন্তর্জাতিক মিডিয়া সংবাদ প্রকাশ করলেও এ ব্যাপারে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

এ বিষয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া সর্বশেষ আমাদের জানিয়েছে, তারা প্রতিনিধি দলের প্রতিবেদন পেয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। এ বিষয়ে আমাদের বক্তব্য হলো, রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে তাদেরকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয়ার আশ্বাস দেয়া হয়েছে। আমরা তাদেরকে যে নিরাপত্তার কথা বলেছি, তা বিশ্বের কোনো ক্রিকেট দলকে দেয়া হয় না।’

তিনি আরও বলেন, ‘একই সঙ্গে এটাও বলতে চাই, আমরা যখন ওয়ার্ল্ড টি২০ বিশ্বককাপ আয়োজন করেছি, বাংলাদেশে তখন একসঙ্গে ২৪টি দল ছিলো। আমাদের যে নিরাপত্তা বাহিনী আছে, তারা আন্তর্জাতিক খেলাধুলার আসরে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সক্ষম। যদিও তখনকার নিরাপত্তা পরিস্থিতি এখনকার মতো ছিলো না। এখন আগের চেয়ে সময়টা অনেক ভালো। আমরা তাদেরকে এসব বলেছি।’






মন্তব্য চালু নেই