মেইন ম্যেনু

দুর্গম আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কথা (ছবিসহ)

আন্দামান ও নিকোবর এই দুটি দ্বীপপুঞ্জ ভারত মহাসাগরে অবস্থিত। ভৌগোলিকভাবে অঞ্চলটিকে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার অংশ হিসেবে বিবেচনা হয়। আবার ভারত প্রজাতন্ত্রের অংশ হিসেবে একে ভারতবর্ষের অংশ হিসেবেও বিবেচনা করা হয়। এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটির রাজধানী আন্দামানের শহর পোর্ট ব্লেয়ার। সত্যি বলতে এই দ্বীপপুঞ্জ এখনো পর্যন্ত এতোটাই দুর্গম যে- পৃথিবীর মানুষ এই দ্বীপ, এখানকার মানুষ ও জনবসতি, সাংস্কৃতি ইত্যাদি সম্পর্কে এখনো পর্যন্ত খুব কমই জানে।

সুতরাং এখানে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য দেওয়া হল যা হয়তো আপনি জানেন না এবং এগুলো জেনে হয়তো আপনার ভালোলাগবে:

dip11

১। ‘আন্দামান’ এবং ‘নিকোবর’ শব্দদ্বয় মালয় ভাষা থেকে নেওয়া হয়েছে। ‘আন্দামান’ মালয় শব্দ থেকে হিন্দু দেবতা ‘হনুমান’ এর জন্য উদ্ভূত হয়েছে। এবং ‘নিকোবর’ মানে ‘নগ্ন মানুষের জমি’।

২। দ্বীপপুঞ্জের সবচেয়ে বহুল কথিত ভাষা আন্দামান বা নিকোবর নয়। এখানে সবচেয়ে প্রচলিত ভাষা বাংলা। তবে তারা হিন্দি, তামিল, তেলেগু এবং মালায়ালম ভাষাও অনুসরণ করে।

dip22

৩। এই দ্বীপে নিবাসী উপজাতিরা বাইরের দুনিয়ার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করে না। এই দ্বীপপুঞ্জের অধিবাসীরা প্রধানত ‘জার্বা’ উপজাতির অন্তর্গত। তারা সংখ্যায় কম কিন্তু পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন।

৪। এখানে পৃথিবীর বৃহত্তম সামুদ্রিক কচ্ছপ বাস করে। এখানে প্রায় ২২৩ প্রজাতির সপুষ্পক উদ্ভিদ আছে। ৫০৩টি প্রজাতির প্রাণী। সামুদ্রিক প্রাণীর ২২০ প্রজাতি এবং ৩৩ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, এছাড়া আছে ৯৬ প্রজাতির পাখি এবং ৬৬ প্রজাতির সরীসৃপ।

dip33

৫। আন্দামান দ্বীপপুঞ্জে বাণিজ্যিক ভাবে মাছধরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কিন্তু তারা চাইলে শুধু মাছ বিক্রি করেই নিজেদের জীবন যাপন করতে পারে।

ছোট বড় প্রায় ৫৭২টি দ্বীপ নিয়ে এই আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ। বিরল প্রজাতির উদ্ভিদ ও পশু পাখি মিলিয়ে দ্বীপটির অন্যরকম আবহ তৈরী হয়েছে। দ্বীপপুঞ্জের চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে কোরাল সমৃদ্ধ অজস্র সমুদ্র সৈকত, বিস্তীর্ণ সমুদ্র তটরেখা। তটরেখা অলংকৃত করে আছে সারি সারি নারিকেল সুপারি গাছ। -সূত্র: ইন্ডিয়া টাইমস।






মন্তব্য চালু নেই