মেইন ম্যেনু

দৃষ্টিশক্তি প্রখর করে মিষ্টি আলু

মিষ্টি আলুকে আমরা তেমন গুরুত্ব না দিলেও এতে রয়েছে অবাক করার মতো খাদ্যগুণ। সম্প্রতি আফ্রিকায় মিষ্টি আলু ওপর একটি গবেষণা করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, “সুপার ফুড থেকে কোনো অংশে কম নয় মিষ্টি আলু। এতে রয়েছে ফাইবার, ভিটামিন, প্রোটিন যা শরীরে রাখে সুস্থ ও রোগ মুক্ত।

দৃষ্টিশক্তি প্রখর করে

মিষ্টি আলুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন A। যা চোখ ভালো রাখতে খুব জরুরি। গবেষণায় দেখা গিয়েছে চাহিদার ৯০ শতাংশ ভিটামিন A পাওয়া যায় মিষ্টি আলু থেকে।

অ্যান্টি-এজিং অ্যান্ড অ্যান্টি ক্যানসার

মিষ্টি আলুতে রয়েছে ক্যারটিনেয়েড, যাতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ক্যানসারের বৈশিষ্ট্য। যা শরীরের মধ্যে থেকে বিপজ্জনক মৌল শুষে নেই, যা ক্যানসারের কারণ। হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ে একদল গবেষকরা কিছুদিন আগেই জানিয়েছিলেন বিটা ক্যারটিনয়েড-সমৃদ্ধ খাবার মানুষের ফুসফুসে ক্যানসারের সম্ভাবনা ৩০ শতাংশ কম করে।

রোগমুক্ত শরীর

মিষ্টি আলুতে রয়েছে ভিটামিন বি ৬। যা কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। এছাড়া রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা সুস্থ ধমনী, রক্ত, হাড়, হার্ট, পেশী এবং নার্ভ ফাংশন জন্য প্রয়োজনীয় সমৃদ্ধ। মিষ্টি আলু পাওয়া পটাসিয়াম হৃৎস্পন্দন এবং নার্ভ সংকেত নিয়ন্ত্রণ এবং পেশী সংকোচন ফোলা কমায় ও কিডনি ফাংশন নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

এনার্জির জোগান দেয়

মিষ্টি আলু এনার্জি সাপ্লাইয়ার। মিষ্টি আলুরে যে সুগার রয়েছে তা আস্তে আস্তে রক্ত প্রবাহে মুক্তি হয়। ফলে প্রচুর এনার্জি পাওয়া যায়। তারা খেলোয়াড়দের এবং যারা কম রক্তচাপ ভোগা খাদ্যের তালিকায় মিষ্টি আলুর সুপারিশ করা হয়।

ওজন কমাতে

মিষ্টির কারণে যারা ভাবেন মিষ্টি আলুতে ওজন বাড়ে তারা কিন্তু ভুল ভাবছেন। মিষ্টি আলুর লো-গ্লাইমেক্স ইনডেক্স যা রক্তে শর্করার পরিমাণ কম করে। তাই মিষ্টি বলে মিষ্টি আলু এড়ানোর কোনো মানেই হয় না।

তাই সেদ্ধ করে, পুড়িয়ে কিংবা তরকারিতে আপনি মিষ্টি আলু খেতেই পারেন।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই