মেইন ম্যেনু

দেখামাত্র গুলির নির্দেশ

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে জাঠ বিক্ষোভকারীদের দেখামাত্র গুলির নির্দেশ দিওয়া হয়েছে। হরিয়ানায় বিক্ষোভের বিরুদ্ধে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে শনিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

হরিয়ানা রাজ্য প্রায় অচল করে দেয় বিক্ষোভকারী জাঠ সম্প্রদায়। তাদের দাবি, সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে প্রতিটি ক্ষেত্রে কোটা সংরক্ষণ করতে হবে। কিন্তু রাজ্য সরকার তাদের দাবিতে কর্ণপাত না করায় উত্তাল বিক্ষোভে ফেঁটে পড়ে জাঠরা।

হরিয়ানার প্রধান প্রধান রাজপথ, রেলপথ বন্ধ করে দেয় বিক্ষোভকারীরা। কয়েকটি রেলস্টেশনে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ছাড়া কিছু স্থানে রেললাইন উপড়ে ফেলা হয়। যাতে করে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে হরিয়ানা। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।

বিক্ষোভ দমনে আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে হরিয়ানায়। বিএসএফ মাঠে নেমেছে। পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভ দমনে তারাও অস্ত্র ব্যবহার করছে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে। তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিক্ষোভকারীদের দেখামাত্র গুলি করতে। রাস্তা কেটে ফেলায় যোগাযোগ ব্যাহত হচ্ছে নিরাপত্তাকর্মীদের। ফলে হেলিকপ্টার নিয়ে টহল দিচ্ছে তারা। শনিবার ফ্ল্যাগ মার্চ করেছে সেনাবাহিনী। আতঙ্ক ও ভয় উপেক্ষা করে দাবির পক্ষে অটল রয়েছে জাঠরা।

হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর বৃহস্পতিবার জাঠ বিক্ষোভকারীদের নিয়ে বৈঠক করেন। পরে এ নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকও করেন মুখ্যমন্ত্রী। জাঠদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়। কিন্তু জাঠরা তাতে সন্তুষ্ট নয়। তাদের দাবি, রাজ্যসভায় কোট সংরক্ষণের বিল উত্থাপন করে পাস না পর্যন্ত তারা বিক্ষোভ থেকে ঘরে ফিরবে না। ফলে জাঠদের সঙ্গে সরকারের সমঝোতার প্রাথমিক উদ্যোগ ভেস্তে যায়।

এদিকে সবশেষ খবরে এনডিটিভি অনলাইন জানিয়েছে, বিক্ষোভ দমনে এবং কারফিউ দতারকি করার জন্য ৩ হাজার ৩০০ আধাসামরিক সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই