মেইন ম্যেনু

দেশের কারাগারে ৫১০ বিদেশি, সর্বাধিক মিয়ানমারের

বাংলাদেশের কারাগারে বিভিন্ন দেশের ৫১০ জন আটক রয়েছে বলে সংসদকে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি জানান, ৫১০ জন বিদেশি কয়েদির মধ্যে বিচারাধীন ৩৬৮ জন, কয়েদি ৬২ জন এবং মুক্তিপ্রাপ্ত ৫০ জন রয়েছে। তার মধ্যে মিয়ানমারের সর্বাধিক ২৩৭ জন রয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে জাতীয় সংসদের টেবিলে উত্থাপিত মো. মামুনুর রশীদ কিরণের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

এর আগে সকাল ১০টা ৪৭ মিনিটে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে দিনের কার্যসূচি শুরু হয়।

সংসদে আসাদুজ্জামান খান কামালের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, মিয়ানমারের পরই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভারতের ২০২ জন নাগরিক বাংলাদেশের কারাগারে আটক রয়েছেন। ভারতের ২০২ জনের মধ্যে কয়েদি ৪৩ জন, বিচারাধীন ১০৩ জন এবং মুক্তিপ্রাপ্ত ৫৬ জন।

এ ছাড়া পাকিস্তানের ৪৩ জনের মধ্যে কয়েদি ৮ জন, বিচারাধীন ৩৩ জন এবং মুক্তিপ্রাপ্ত দুজন। নেপালের দুজনই মুক্তিপ্রাপ্ত। তানজানিয়ার তিনজনের মধ্যে কয়েদি দুজন, বিচারাধীন একজন। নাইজেরিয়ার ১০ জনই বিচারাধীন। মালয়েশিয়ার একজনই বিচারাধীন। এ ছাড়া ক্যামেরুনের দুজন বিচারাধীন, পেরুর একজন বিচারাধীন ও আলজেরিয়ার একজন বিচারাধীন।

নিজাম উদ্দিন হাজারীর অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আবুল কালাম আযাদ ওরফে বাচ্চু রাজাকারের নামে ইন্টারপোলে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। শনাক্তপূর্বক তাকে গ্রেফতার করে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে এ রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়।’

রেড অ্যালার্ট নোটিশটি ইন্টারপোলের সদর দপ্তরসহ এর সদস্যভুক্ত সব দেশে ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরোকে (এনসিবি) অবহিত করা হয়েছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।






মন্তব্য চালু নেই