মেইন ম্যেনু

দেশের ৭০-৮০ ভাগ লোক বিএনপির সমর্থক : ফখরুল

বিএনপি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজনীতি করে। দেশের প্রায় ৭০-৮০ ভাগ লোক বিএনপির সমর্থক। কাজেই বিএনপিকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য এবং চলমান সংকট সমাধান সম্ভব হবে না।

গুলশান হলি আর্টিজান বেকারী ও রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণে বিএনপি’র ঘোষিত কর্মসূচি শোক দিবস উপলক্ষে শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এই শোকসভার আয়োজন করে ঢাকা মহানগর বিএনপি।

দলমত নির্বিশেষে ৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ নামক দানবকে পরাজিত করতে জাতীয় ঐক্যের আহ্বানও জানান মির্জা ফখরুল।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘দেশে যে সংকট সৃষ্টি হয়েছে, বিএনপিকে বাদ দিয়ে সেই সংকটের সমাধান সম্ভব নয়। তাই ক্ষমতাসীনরা যদি বিএনপিকে ছাড়াই জাতীয় ঐক্য তৈরি করে সেক্ষেত্রে বিএনপি দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।’

সভায় সভাপতিত্ব করেন নগর বিএনপির আহ্বায়ক ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

জঙ্গিবাদকে অভ্যন্তরীণ সমস্যা ভেবে উড়িয়ে দেওয়ার সুযোগ নেই উল্লেখ করে মির্জা আলমগীর বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার দেশে সংঘটিত প্রতিটি ঘটনার প্রকৃত তথ্য উৎঘাটন না করে বিএনপিসহ বিরোধীদলকে জড়িয়ে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে চায়। উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ দমনে কোনো খেয়াল নেই। তাদের খেয়াল শুধু বিএনপিকে কীভাবে ধ্বংস করে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায়। কিন্তু বিএনপি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজনীতি করে। দেশের প্রায় ৭০-৮০ ভাগ লোক বিএনপির সমর্থক। কাজেই বিএনপিকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য এবং চলমান সংকট সমাধান সম্ভব হবে না।’

তিনি বলেন, বিএনপি বিশ্বাস করে উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ নামক দানবকে পরাজিত করতে হাতিয়ার জনগণ, হাতিয়ার গণতন্ত্র। ফলে গণতন্ত্রকে চলতে দিতে হবে। আর এর জন্য রাজনৈতিকভাবে সমন্বিত প্রচেষ্টায় জাতীয় ঐক্যের বিকল্প কিছু নেই।’

শোকসভায় মির্জা ফখরুল বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ দলের সকল নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

শোকসভায় বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আহমেদ আযম খান, যুগ্মমহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন, মজিবুর রহমান সারোয়ার প্রমুখ। এছাড়া দলের কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুস সালাম আজাদ, কাজী আবুল বাশার, ফরিদা ইয়াসমিন, রফিকুল ইসলাম মজনু, মোস্তাফিজুল করীম মজুমদার, ইয়াসিন আলী, মনিরুল ইসলাম মনির প্রমুখ বক্তব্য দেন।






মন্তব্য চালু নেই