মেইন ম্যেনু

দেশ এগিয়ে যাওয়ার একটি নিদর্শন এই ‘স্মার্ট কার্ড’

উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র (স্মার্ট কার্ড) বিতরণ শুরু হয়েছে আজ সোমবার সকাল ৯টা থেকে। প্রাথমিকভাবে ঢাকার উত্তরা ও রমনা থানায় এবং কুড়িগ্রামের বিলুপ্ত ছিটমহল দাশিয়ারছড়াতে স্মার্ট কার্ড বিতরণ শুরু হয়েছে। স্মার্ট কার্ড হাতে পেয়ে খুশি নাগরিকরা। তারা বলছেন, ‘দেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে তার একটি নিদর্শন এই স্মার্ট কার্ড। নাগরিকদের মাঝে এই কার্ড বিতরণের মধ্য দিয়ে আমাদের দেশ আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল’।

সোমবার সকাল ৯টা থেকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১ নম্বর ওয়ার্ড (উত্তরা) এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটির ১৯, ২০ ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডে (রমনা এলাকা) স্মার্ট কার্ড বিতরণ শুরু হয়েছে।

সকাল ৯টার কিছু পরে উত্তরা হাই স্কুল ও কলেজে নিজের স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করতে এসেছেন প্রতাপ খান নামের একজন ব্যবসায়ী। স্মার্ট কার্ড পাওয়ার পর তিনি বলেন, স্মার্ট কার্ড হাতে পেয়ে অবশ্যই খুব ভালো লাগছে। তবে এটা আরো আগেই করা উচিত ছিলো। দেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে তার একটি নিদর্শন এই স্মার্ট কার্ড। আমার মত অন্য সব নাগরিকরাও স্মার্ট কার্ড হাতে পেয়ে খুশি।

আনিসুর রহমান নামের আরেক চাকরিজীবীও এসেছেন নিজের স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করতে। কার্ড হাতে পাওয়ার পর তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, আামার স্ত্রী-মেয়ে সহ আমরা তিনজন এসেছি স্মার্ট কার্ড নিতে। সকাল ৯ টায় এসে ১১ টার দিকে কার্ড হাতে পেয়েছি। অবশ্যই এই স্মার্ট কার্ড হাতে পেয়ে আনন্দ লাগছে।

উত্তরা হাই স্কুল ও কলেজে কার্ড বিতরণ স্থল ঘুরে দেখা যায় কার্ড বিতরণ, কার্যক্রম এবং কার্ড প্রত্যাশী নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহে ৫টি দল কাজ করছে। এছাড়াও পরে আরো বেশ কিছু কর্মী এসে টিমের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বরতরা।

এই টিমের সদস্য হিসেবে ডাটা এন্ট্রির কাজ করছেন গোলাম মোস্তফা। তিনি জানান, সকাল থেকে নাগরিকরা তাদের স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করতে আসছেন এবং আমরা তাদের সার্বিক সহযোগিতা করার মাধ্যমে স্মাট কার্ড বিতরণ করছি।

উল্লেখ্য, উত্তরায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ চলবে আজ (৩ অক্টোবর) থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত। প্রথমে ঢাকার উত্তরার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ৬৩ হাজারেরও বেশি ভোটারের কাছে আজ পরীক্ষামূলকভাবে স্মার্ড কার্ড বিতরণ শুরু হয়েছে উত্তরা হাই স্কুল ও কলেজে।






মন্তব্য চালু নেই