মেইন ম্যেনু

দেড় মাসের মধ্যে হার্টের সব ধরণের রিং এর দাম ঠিক করবে সরকার

হৃদরোগীদের জন্য হার্টের রিং এর মোড়কে এখন থেকে রেজিষ্ট্রেশন নম্বর, উৎপাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ উল্লেখ রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। চিকিৎসক ও রোগীদের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েই রিং ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। তারা জানিয়েছে, আগামী দেড় মাসের মধ্যেই সব ধরণের রিং এর দাম ঠিক করে দেয়া হবে।

দেশে মোট জনগোষ্ঠীর ৮ থেকে ১০ শতাংশ হৃদরোগে আক্রান্ত। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, হৃদরোগে আক্রান্তদের এনজিওগ্রাম করার পর অর্ধেক রোগী ওষুধ সেবনের মাধ্যমে সুরক্ষা নেন। বাকী পঞ্চাশ ভাগ রোগীর দুই তৃতীয়াংশের জীবন রক্ষায় হার্টের রিং লাগানো অপরিহার্য।

কিন্তু একই রিং বা স্টেন্ট বিভিন্ন দামে বিক্রি করা হয়। এ অরাজকতা বন্ধে উদ্যোগী হয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

এ লক্ষ্যে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, হার্টের রিং আমদানীকারী চারটি প্রতিষ্ঠান এরইমধ্যে স্বেচ্ছায় দুই ধরণের রিং ২৫ ও ৫০ হাজার টাকায় বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে। ওই রিং এর দামসহ অন্য রিং বাজারজাতকারীদের জন্য কিছু নির্দেশনা সারা দেশের হাসপাতাল গুলোতে পাঠানো হয়েছে।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর হার্টের রিং এর দাম ঠিক করতে ও নিয়ন্ত্রণে গত ১১ এপ্রিল ১৭ সদস্যের কমিটি গঠন করে। বিভিন্ন দেশের স্টেন্ট এর দাম পর্যালোচনা করে সব ধরণের রিং এর দাম নির্ধারণ করে দেবে এই কমিটি।






মন্তব্য চালু নেই