মেইন ম্যেনু

দৈনিক আড়াই হাজার অভিবাসী নেবে স্লোভেনিয়া

অনির্দিষ্ট সংখ্যক অভিবাসী গ্রহণ করা সম্ভব নয় বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে স্লোভেনিয়া। তবে প্রতিবেশী অস্ট্রিয়া যদি বলে এসব অভিবাসীদের প্রবেশে বাধা নেই, তাহলে অন্য বিষয়। দেশটি দৈনিক আড়াই হাজার অভিবাসীকে সীমান্ত অতিক্রম করতে দেবে, তবে কোনো ভাবেই এর বেশি নয়।

অন্যদিকে হাঙ্গেরি অভিবাসীদের জন্যে তাদের সীমান্ত বন্ধের পর দক্ষিণের প্রতিবেশী ক্রোয়েশিয়া প্রতিদিন পাঁচ হাজার অভিবাসীকে গ্রহণ করতে স্লোভেনিয়ার প্রতি আহবান জানিয়েছে। তবে স্লোভেনিয়া এর অর্ধেক পরিমাণ অর্থাৎ আড়াই হাজার অভিবাসী গ্রহণ করবে।

এখন থেকে প্রতিদিন সর্বোচ্চ আড়াই হাজার অভিবাসীকে সীমানা অতিক্রমের অনুমতি দেয়া হবে। স্লোভেনিয়ার পক্ষে ক্রোয়েশিয়ার অনুরোধ রাখা আর সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

অস্ট্রিয়া দৈনিক দেড় হাজার অভিবাসী নেবে।সুতরাং তাদের পক্ষে প্রতিদিন পাঁচ হাজার করে অভিবাসী গ্রহণ সম্ভব নয় বলে জানায় স্লোভেনিয়া।

স্লোভেনিয়া ও ক্রোয়েশিয়ায় অভিবাসী হিসেবে যারা আসছেন, তাদের অধিকাংশই আফগানিস্তান, সিরিয়া ও ইরাকের নাগরিক। মূলত জার্মানী, নরওয়ে ও অস্ট্রিয়ার মত পশ্চিম ইউরোপের দেশগুলোতে পৌঁছানোর উদ্দেশ্যেই স্লোভেনিয়া ও ক্রোয়েশিয়াকে ট্রানজিট হিসেবেই ব্যবহার করছে এসব অভিবাসীরা।

এদিকে, তুরস্ক বলেছে যে ইউরোপে শরনার্থীর ঢল কিভাবে বন্ধ করা যায় তা নিয়ে জামানির সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতি হয়েছে। আরো কয়েকে হাজার আশ্রয় প্রার্থী এখনও তুরস্ক হয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে ঢোকার চেষ্টা করছে।

ইস্তানবুলে জামার্নির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের সঙ্গে বৈঠকের পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইইপ এরদোয়ান বলেন, তাঁরা আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতে রাজি হয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই