মেইন ম্যেনু

ধর্মশালায় খেলতে রাজি নয় পাকিস্তান

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ধর্মশালায় নির্ধারিত পাকিস্তান-ভারত ম্যাচটি নিয়ে শঙ্কা দিগুণ বেড়ে গেল। ম্যাচ হওয়া, না হওয়া নিয়ে মঙ্গলবার বিস্তর আলোচনা হয়। গভীর রাতে জানা যায়, পাকিস্তান ধর্মশালায় খেলতে রাজি নয়।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্বকাপের টুর্নামেন্ট ডিরেক্টর এমভি শ্রীধর অবশ্য বলেন, ধর্মশালাতেই ভারত-পাক ম্যাচ হবে। কিন্তু গভীর রাতে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) সূত্রের খবর, তাদের প্রতিনিধিরা ধর্মশালা ঘুরে এসে নাকি নিরাপত্তার ব্যাপারে সন্তুষ্ট হতে পারেননি।

পাকিস্তানের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা দলকে জানিয়ে দিয়েছেন, ধর্মশালায় খেলতে যেতে হবে না।

এ বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত জানা যায়নি। আজ সরকারিভাবে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়ার কথা। পিসিবিও নাকি আইসিসি-কে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে চিঠি পাঠাচ্ছে।

এমনিতে পাকিস্তানের বুধবারই প্রথমে নয়াদিল্লীতে এসে, সেখান থেকে কলকাতায় আসার কথা। তবে রাতে পাক মিডিয়া সূত্র জানাচ্ছে, পাকিস্তানের আসা এক দিন পিছিয়ে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে শহীদ আফ্রিদিরা আসবেন বৃহস্পতিবার।

প্রশ্ন উঠছে, ধর্মশালায় ম্যাচ না হলে কোথায় হবে? আপাতত জানা যাচ্ছে, চারটে কেন্দ্রকে বিকল্প হিসেবে তৈরি রাখছে ভারত সরকার। মোহালি, বেঙ্গালুরু, নাগপুর এবং কলকাতা। কলকাতা পুরোপুরি তৈরি ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ করতে। সিএবি-র তরফে নাকি বোর্ডকে বলা হচ্ছে, ‘আমরা ২০১১ সালে বিশ্বকাপ ম্যাচ হারিয়েছি। সেটা বেঙ্গালুরুতেই গিয়েছিল। এ বার ইডেনে একটাও ভারতের ম্যাচ নেই। তা ছাড়া ব্রডকাস্টারদের সুবিধা ধরলে ইডেন এ ব্যাপারে অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী।’






মন্তব্য চালু নেই