মেইন ম্যেনু

ধর্ষণের পর হত্যা : শিশুর লাশ পুকুরে

চট্টগ্রাম মহানগরী ৮ বছরের এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণের পর হত্যা করে লাশ বস্তায় ভরে পুকুরে নিক্ষেপ করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে চট্টগ্রামের ইপিজেড থানার হক সাহেব রোডের একটি পুকুর থেকে তানিয়া (৮) নামের ওই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে লাশ উদ্ধারের পর শিশুটিকে ধর্ষণ এবং হত্যাকা-ে জড়িত সন্দেহে পুলিশ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে।

নিহত তানিয়া স্থানীয় মোহাম্মদীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। তার পিতা মাতা নেত্রকোনায় গ্রামের বাড়িতে বসবাস করেন। সে নিকটাত্বীয়ের সঙ্গে চট্টগ্রামে থাকত।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে তানিয়া রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়। বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তানিয়ার পরিবারের সদস্যরা তার কোনো সন্ধান না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করে। মধ্যরাত পর্যন্ত পুরো এলাকায় মাইকিং করেও তানিয়ার কোনো সন্ধান পাননি পরিবারের সদস্যরা।

এরপর শুক্রবার সকালে ইপিজেড সড়কের হক সাহেব রোডে একটি পুকুরে বস্তাবন্দি লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটানাস্থলে পৌঁছে তানিয়ার লাশ উদ্ধার করে এবং সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ মর্গে প্রেরণ করে।

ইপিজেড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জাভেদ মাহমুদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্টে শিশুটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। হত্যার পর লাশ বস্তাবন্দি করে পুকুরে ফেলে দিয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। গ্রেফতারকৃতদের বাসা থেকে নিহত শিশু তানিয়ার জামা ও জুতো উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই